kalerkantho


'আব্বা, ঠ্যাংটা খোঁড়া করো না'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২০:৩১



'আব্বা, ঠ্যাংটা খোঁড়া করো না'

সন্তান কোনো ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করলে বরাবরই মা-বাবা সতর্ক করে থাকেন। এমনকি প্রয়োজনে শাসনও করেন। অন্যদিকে কিশোর ছেলেদের সঙ্গে বাবা খেলায় মেতে উঠলে সন্তানের ভালো লাগারই কথা।

কিন্তু ষাটোর্ধ্ব বাবাকে ফুটবল খেলতে নেমে হাপিয়ে উঠতে দেখে মোটেও ভালো লাগেনি ২০ বছর বয়সী নাজিবুলের। তার বাবার নাম ইমরান বিশ্বাস।

বাবাকে খেলতে নেমে হাপাতে দেখে মাঠের পাশ থেকে নাজিবুল বলে ওঠে, আব্বা ঠ্যাংটা খোঁড়া করো না!

ইতোমধ্যেই নাজিবুলের বাবা ইমরান ৬২ বছর বয়স পার করেছেন। তবে, ভোর হলেই হারানো কৈশোরের স্বভাবটা ছাড়তে পারেননি, বল নিয়ে ছোটাছুটির অভ্যাসটা এখনো টিকিয়ে রেখেছেন।

আরো পড়ুন : 'তাকে' হাসতে দেওয়ার অনুরোধ মোদির! কিন্তু কাকে ...

বয়স্কদের মধ্যে কেবল তিনিই যে মাঠে নেমেছেন তা কিন্তু নয়। ভারতের করিমপুরের কার্তিক পালের চায়ের দোকান এক রকম কফি হাউসের মতো সরগরম। সেসব ছেড়ে ইমরানের সঙ্গে একটু পায়ের ভাঁজ বুঝে নেওয়ার নেশায় আরো অনেকেই নামেন।

কলেজের শিক্ষক হিসেবে অবসর নেওয়া মানস চৌধুরীও রয়েছেন সেই দলে।তিনি বল পেলেই ছাত্রকুল মাঠের বাইরে থেকে চিৎকার করতে থাকে।

এরই মধ্যে ইমরান মাটিতে চিৎপটাং হয়ে পড়ে গেলে তার ছেলে উঠে দাঁড়িয়ে উত্তেজনায় বলে বসে, খাইসে রে, আব্বা উইঠ্যা পড়ো, আর খেলে কাম নাই।


মন্তব্য