kalerkantho


'তাকে' হাসতে দেওয়ার অনুরোধ মোদির! কিন্তু কাকে ...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৯:৪৯



'তাকে' হাসতে দেওয়ার অনুরোধ মোদির! কিন্তু কাকে ...

মোদির কথা শুনে হাসছেন সবাই।

সংসদের দুই কক্ষেই রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর বুধবার আলোচনার জবাব দিতে উঠে কংগ্রেসকে তুলোধুনা করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রাজ্যসভায় তার ভাষণের সময় হঠাৎ কংগ্রেস সাংসদ রেণুকা চৌধুরী অট্টহাসিতে ফেটে পড়েন ।

তা থেকে শুরু হয় ঝগড়া। একপর্যায়ে রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু প্রধানমন্ত্রীকে থামিয়ে দিয়ে রেণুকার দিকে ঘুরে তাকে সাবধান করতে শুরু করেন।

রেণুকাকে তিনি জিজ্ঞাসা করেন, কী হয়েছে আপনার? এরকম বিশৃঙ্খলা ও বাজে কথা মেনে নেওয়া যাবে না। এমনকি গলায় সমস্যা থাকলে রেণুকাকে ডাক্তারের কাছে যাওয়ারও পরামর্শ দেন তিনি।

এরপর বেঙ্কাইয়াকে উদ্দেশ্য করে মোদি বলেন, সভাপতিজি আপনার কাছে একটা বিনীত অনুরোধ জানাব। রেণুকাজিকে কিছু বলবেন না। তাকে হাসতে দেন।

আরো পড়ুন : সাজার মেয়াদ শেষ না হতেই মুক্ত ধর্ষক, মানতে পারছেন না ধর্ষিতা!

মোদি আরো বলেন, রামায়ণ সিরিয়ালের পরে এমন হাসি শোনার সৌভাগ্য হয়নি। অনেকদিন পর আজ সেই সৌভাগ্য হল। মোদির এই কথা শুনে হাসিতে ফেটে পড়েন বিজেপি সাংসদরা। বিজেপি সভাপতি অমিত শাহকেও হাসতে দেখা যায়। টেবিল চাপড়ে বাহবা দেন প্রধানমন্ত্রী।

পরে এ ব্যাপারে রেণুকা অবশ্য কোনো রকম মন্তব্য করতে চাননি। তবে তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী একজন নারীর সম্মানহানি করেছেন। প্রধানমন্ত্রী একেবারেই ব্যক্তিকে উদ্দেশ্য করে মন্তব্য করেছেন। কী আর আশা করা যায় তার কাছ থেকে। আমি তার মত নিচে নামতে পারব না।

এ ব্যাপারে রেণুকাকে আক্রমণ করে মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি বলেন, আমি ওই সময় সংসদে উপস্থিত ছিলাম। আমি শুনেছি কী ধরনের বাজে কথা উনি প্রধানমন্ত্রীর সম্পর্কে বলেছেন।



মন্তব্য