kalerkantho


ইয়াসির আরাফাতকে হত্যার জন্য বিমানে গুলির নির্দেশ দিয়েছিলেন শ্যারন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৩:১১



ইয়াসির আরাফাতকে হত্যার জন্য বিমানে গুলির নির্দেশ দিয়েছিলেন শ্যারন

ছবি অনলাইন

ইসরায়েলের তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যারিয়েল শ্যারন ফিলিস্তিনি নেতা ইয়াসির আরাফাতকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন। সম্প্রতি প্রকাশিত এক বইতে এ তথ্য জানা গেছে।

ইসরাইলি সাংবাদিক রোনেন বার্গম্যানের লেখা নতুন একটি বইয়ে ১৯৮২ সালের এ তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ইসরাইলি দৈনিক হারেজ। বইটির নাম ‘রাইজ অ্যান্ড কিল ফার্স্ট : দ্য সিক্রেট হিস্টোরি অব ইসরায়েলস টার্গেটেড অ্যাসাসিনেশনস’।

আরো পড়ুন : তাইওয়ানে ৬.৪ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প, নিহত ২

ওই নির্দেশে বলা হয়েছিল, বিমানটিতে আরাফাতের থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেলে সেটিকে যেন গুলি করে ভূপাতিত করা হয়।

তবে কিছুক্ষণ পর বিমানটিতে আরাফাত নয় বরং তার মতোই দেখতে তার ভাই ছিলেন বলে জানতে পারে গোয়েন্দারা। ফলে বিমানটিতে আর গুলি করা হয়নি। সাবরা ও শাতিলা গণহত্যা থেকে বেঁচে যাওয়া ৩০টি আহত শিশু বহন করে নিয়ে যাচ্ছিল বিমানটি।

আরো পড়ুন : অগ্নি-১ ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে ভারত

ওই সাংবাদিক বলেন, বহু পরিকল্পিত গুপ্তহত্যার একটি দৃষ্টান্ত হচ্ছে- আরাফাতকে হত্যার নির্দেশ। রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ডের প্রেক্ষাপটে নির্মিত মানচুরিয়ান ক্যান্ডিডেট নামে একটি মার্কিন চলচ্চিত্রের কাহিনী থেকে উৎসাহিত হয়ে এসব হত্যাকাণ্ড চালিত হয়েছিল।

সাংবাদিক রোনেন বার্গম্যান নিউইয়র্ক টাইমসে তার প্রকাশিতব্য বইয়ের একটি অংশ প্রকাশ করেছেন। তাতে বার্গম্যান দাবি করেন, আরাফাতকে হত্যার অভিযানে শ্যারনের চিফ অফ স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল রাফায়েল ইথান খুব আগ্রহী ছিলেন। ইসরাইলি জঙ্গি বিমানে চড়ে তিনি আরাফাতকে বহনকারী বিমানের পিছু নিয়েছিলেন।

১৯৮২ সালের নভেম্বর থেকে ১৯৮৩ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত বার্গম্যান এ ঘটনার ওপর রিপোর্ট করেছিলেন। তিনি বলেন, যদি আরাফাত ওই বিমানে আছেন, এমনটি নিশ্চিত হওয়া যায়, তবে গুলি করার জন্য চারটি এফ-১৬ ও এফ-১৫ বিমান প্রস্তুত ছিল।

সূত্র : নিউ ইয়র্ক পোস্ট

 


মন্তব্য