kalerkantho


রাশিয়ায় তাপমাত্রা নামল মাইনাস ৬৭ ডিগ্রিতে, চোখও জমে বরফ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ২১:০৯



রাশিয়ায় তাপমাত্রা নামল মাইনাস ৬৭ ডিগ্রিতে, চোখও জমে বরফ!

চোখের পানিও জমে বরফ হয়ে যাচ্ছে এবং চোখের পাতার লোমকে ঘিরে ধরছে। এমনকি থার্মোমিটারও এত ঠাণ্ডা সইতে না পেরে ফেটে যাচ্ছে। এতটাই নিচে নেমেছে রাশিয়ার সাইবেরিয়ার ইয়াকুতিয়া অঞ্চলের তাপমাত্রা। মঙ্গলবার সেখানকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ০ ডিগ্রির নিচে মাইনাস ৬৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস!

রাশিয়ার  রাজধানী মস্কো থেকে ৩,৩০০ মাইল পূর্বে অবস্থিত ১০ লাখ মানুষের অঞ্চল ইয়াকুতিয়া। সেখান শিক্ষার্থীরা এমনকি মাইনাস ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রাতেও বিদ্যালয়ে যাচ্ছে। কিন্তু আর সইতে না পেরে মঙ্গলবার সব স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

বিশ্বের সবচেয়ে শীতল গ্রাম সাইবেরিয়ান গ্রাম মায়াকনে তাপমত্রা মাইনাস ৫০ ডিগ্রির নিচে নেমে যাচ্ছিল বলে দেখানো হচ্ছিল রাষ্ট্রীয় টেলেভিশনে। কিন্তু ইলেকট্রিক থার্মোমিটারটি এক পর্যায়ে ফেটে যায়। ২০১৩ সালে গ্রামটিতে ইতিহাসের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা মাইনাস ৭১ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।

গত রবিবার গাড়ি ভেঙ্গে যাওয়ায় তা থেকে বের হয়ে পায়ে হেঁটে পাশের একটি ফার্মে যাওয়ার চেষ্টা করার সময় দুজন জমে বরফ হয়ে যান এবং মৃত্যুর বরণ করেন। তবে তাদের সঙ্গে থাকা বাকী তিনজন বেঁচে যান। কারণ তাদের পরনে আরো গরম কাপড় ছিল।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এসেছে সাইবেরিয়ার বাসিন্দাদের কয়েকটি ছবি। যাতে দেখা যাচ্ছে ঠাণ্ডার জেরে চোখের পাতাতেও বরফ জমতে শুরু করে দিয়েছে।

সাইবেরিয়ান টাইমস সংবাদপত্রের দাবি, ওয়েমিয়াকোন-এ তাপমাত্রা কোথাও কোথাও মইনাস ৬৭.৭ ডিগ্রি হয়ে গিয়েছে। আর তা যদি সত্যি হয়, বলতে হবে, তাহলে ১৯৯৩ সালের রেকর্ড ভেঙে এখনই শীতলতম দিন কাটাচ্ছে সাইবেরিয়া।

সূত্র: টাইমস অফ ইন্ডিয়া



মন্তব্য