kalerkantho


স্বামীর মরদেহ নিয়ে ভোগান্তিতে স্ত্রী, এগিয়ে আসেনি কেউ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১২:৩৬



স্বামীর মরদেহ নিয়ে ভোগান্তিতে স্ত্রী, এগিয়ে আসেনি কেউ

রেল স্টেশনের প্লাটফর্মে চার ঘণ্টা ৩০ মিনট ধরে স্বামীর মরদেহ আগলে রাখলেন অসহায় স্ত্রী। ভারতের জলপাইগুড়ি জেলার ধূপগুড়ি রেল স্টেশনে ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করেছেন যাত্রীরা।

জানা গেছে, সোমবার বিকেল চারটা ১০ মিনটে ধূপগুড়ি রেল স্টেশনে পৌঁছায় কামরূপ এক্সপ্রেস ট্রেন। সোনা ভান খাতুন অন্য যাত্রীদের সাহায়তায় স্বামী আবদুল লতিফের মরদেহ ট্রেন থেকে প্ল্যাটফর্মে নামিয়ে নিয়ে আসেন।

ওই সময় সঙ্গে ছিলেন তার ভাতিজা। তাদের দাবি, ফালাকাটা স্টেশন পার হওয়ার পরই চলন্ত ট্রেনে অসুস্থ আবদুল লতিফের মৃত্যু হয়। পরে ধূপগুড়ি স্টেশনে এসে মরদেহ নামিয়ে নেন তারা।

আরো পড়ুন : বরফের আস্তরণ ভেঙে বেরিয়ে আসছে নাসারন্ধ্র, কার?

কিন্তু রেল কর্তৃপক্ষের কাছে স্বামীকে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার জন্য সহযোগিতার অনুরোধ করলেও কেউ এগিয়ে আসেননি বলে অভিযোগ করেন তারা।

সোনা ভান জানান, সবাই দূর থেকে দেখতে থাকলেও সাহায্যের জন্য কেউ এগিয়ে আসেননি।

জানা গেছে, চিকিৎসার জন্য অাসামের বরপেটা জেলার ধূপালপাড়া থেকে স্বামীকে নিয়ে কলকাতা যাচ্ছিলেন সোনা ভান। কিন্তু মাঝপথেই আবদুল লতিফের মৃত্যু হয়।

ধূপগুড়ি স্টেশনের মাস্টার অমিত কুমার বলেন, কামরুপ এক্সপ্রেস ট্রেনে করে ওই যাত্রীরা এসেছেন। যাত্রীর মৃত্যুর ব্যাপারে আরপিএফ ও জিআরপিকে মেমো দিয়ে জানানো হয়েছে। অসহযোগিতার অভিযোগ খতিয়ে দেখার কথাও জানান তিনি।

 



মন্তব্য