kalerkantho


চামচ চুরি : লন্ডনে মমতার সফরসঙ্গী সাংবাদিকের ৫০ পাউন্ড জরিমানা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৫:১৫



চামচ চুরি : লন্ডনে মমতার সফরসঙ্গী সাংবাদিকের ৫০ পাউন্ড জরিমানা

মমতা ব্যানার্জি -ফাইল ফটো

রুপার চামচে লোভ সামলাতে পারলেন না মুখ্যমন্ত্রী মমতার সফরসঙ্গীরা, শেষে জরিমানা গুনলেন ৫০ পাউন্ড!

সম্প্রতি এমন অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটেছে লন্ডনে। 

ভারতীয় হিন্দি পত্রিকা জনসত্তা.কম জানায়, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি এক সরকারি সফরে লন্ডন গিয়েছিলেন। তার সফরসঙ্গীদের কয়েকজন সেখানকার এক হোটেলে চৌর্যবৃত্তির কারণে ধরা পড়েন। 

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় ওই ‘গুণধর’ সফরসঙ্গীরা হোটেলের চামচ লুকিয়ে রাখছেন নিজেদের কাছে। চামচগুলো রুপার তৈরি।

আউটলুক পত্রিকার রিপোর্টে জানায় যায়, লন্ডনে মমতা ব্যানার্জির সম্মানে এক অভিজাত হোটেলে ডিনারের আয়োজন করা হয়। হোটেলের নিরাপত্তাকর্মীরা লাইভ সিসি ক্যামেরায় ভিভিআইপি অতিথিদের অমন চৌর্যবৃত্তির কাণ্ড দেখে থ বনে যান। 

মনিটরে তারা দেখেন, খাবার বা সৌজন্য-ভদ্রতার দিকে মনোযোগ না দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গীদের কেউ কেউ রুপার চামচগুলো সঙ্গে থাকা পার্স বা ব্যাগে ভরে ফেলছেন।  

পত্রিকা জানায়, খুবই পরিতাপের বিষয়, এমন কাণ্ড যারা করেছেন, তাদের পরিচয় নিশ্চিত হতে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়- তারা প্রায় সবাই পশ্চিমবঙ্গের সিনিয়র সাংবাদিক এবং সম্পাদক!

এ ঘটনা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ও সাংবাদিক সমাজকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দিয়েছে নিংসন্দেহে।

মমতার সঙ্গে হরদম বিদেশযাত্রায় সঙ্গী থাকেন, এমন একজন সিনিয়র সাংবাদিক নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই ঘটনা ফাঁস করেন অপর সাংবাদিকদের কাছে। 

প্রকাশিত খবরে জানা যায়, প্রথম যিনি টেবিল থেকে চামচ চুরি করেন তিনি পশ্চিমবঙ্গের নামিদামি পত্রিকায় কর্মরত সিনিয়র সাংবাদিক। 'চামচ কাণ্ডে ধরা খাওয়া' অপর সিনিয়র সাংবাদিক অন্য একটি নামি হাউসের সম্পাদক। 

আরো পড়ুন : অবহেলা, অসম্মানের জীবন নিয়ে আক্ষেপ মমতার

জনসত্তা.কম ভারতের একজন বাঙালি সাংবাদিকের বরাতে জানায়, ধরা খাওয়া সাংবাদিকরা আশপাশে সিসিটিভি ক্যামেরা দেখেছিলেন। তবে তারা ভেবেছিলেন ওইসব ক্যামেরা বুঝি অচল। কারণ, পশ্চিমবঙ্গে হামেশাই দেখা যায় সিসিটিভি ক্যামেরা কাজ করে না। 

পত্রিকা আরো জানায়, ‘চুরিকাণ্ড’ নজরে আসার পর নিরাপত্তা কর্মকর্তারা সংশ্লিষ্টদের জানান যে তারা যা যা করেছেন তার সবই সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়ছে। বিষয়টি যখন আলোচনায় চলে আসে তখন মুখ্যমন্ত্রীর সফরসঙ্গী এবং অভিযুক্ত- এমন একজন চ্যালেঞ্জ করে বসেন যে তিনি চামচ চুরি করেন নাই এবং হোটেল কর্তৃপক্ষ চাইলে তার তল্লাশি নিতে পারেন। 

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়- এই ব্যক্তিটিও চৌর্যবৃত্তিতে শামিল ছিলেন। তিনি চাঁদির তৈরি একসেট ডেজার্ট-চামচ অপর সহকর্মীর অগোচরে তার ব্যাগে রেখে দেন।

বাকিরা দোষ স্বীকার করে চামচগুলো ফেরত দিলেও তিনি বেঁকে বসেন।

একপর্যায়ে অভিযুক্ত এই ব্যক্তি নিরাপত্তাকর্মীদের সহযোগিতা না করায় হোটেল কর্তৃপক্ষ পুরো ঘটনা প্রকাশ করে দেওয়ার হুমকি দেয়। এরপর তিনি নতি স্বীকার করেন। এ বাবদে ৫০ পাউন্ড জরিমানা করে 'মামলা ডিশমিশ' করা হয়। 

আরো পড়ুন : বাংলাদেশের বিরুদ্ধে নালিশ করবেন মমতা

অভিযোগ সূত্রে সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা দোষ স্বীকার করেন। তবে তাদের নাম-পরিচয় প্রকাশ হয়নি মিডিয়ায়। 

এ প্রসঙ্গে একজন সাংবাদিক মন্তব্য করেন, রাষ্ট্রনেতাদের বিদেশ সফরে সঙ্গী হন- এমন অনেকেরই চামচসহ ছোটখাটো জিনিস চুরি করার অদ্ভুত স্বভাব রয়েছে।
সূত্র: আউটলুক, হাফিংটনপোস্ট, জনসত্তা.কম, দ্যলজিক্যালইন্ডিয়ান.কম 

 


মন্তব্য