kalerkantho


মার্কিনিদের গড় আয়ু কমল টানা দ্বিতীয় বছর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৫:৫৩



মার্কিনিদের গড় আয়ু কমল টানা দ্বিতীয় বছর

ছবি অনলাইন

এখন প্রতিটি মার্কিন শিশু জন্মগ্রহণের সময় প্রত্যাশিত আয়ু আগের তুলনায় কমেছে। এর আগে গত বছরও এ আয়ু কমেছিল।

এর আগে ১৯৬৩ সালে পর পর দুইবার এ আয়ু কমেছিল। সাম্প্রতিক গড় আয়ু কমে যাওয়ার পরিসংখ্যান প্রকাশিত হয়েছে ইউএস ন্যাশনাল সেন্টার ফর হেলথ স্ট্যাটিসটিকস (এনসিএইচএস) তথ্যে।

বর্তমান পরিসংখ্যানে জানা যায়, ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে জন্মগ্রহণকারী প্রতিটি শিশুর প্রত্যাশিত জীবনকাল ছিল ৭৮.৬ বছর।
২০১৭ সালের পরিসংখ্যানে প্রকাশিত হয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জন্মগ্রহণকারী শিশুদের প্রত্যাশিত আয়ু ৭৬.১ বছর।

আরো পড়ুন : সর্বোচ্চ আয়ু ১১৫ টপকাবে না, দাবি গবেষণায়

এর আগে ২০১৬ সালে গত দুই দশকের মধ্যে প্রথম যুক্তরাষ্ট্রে মানুষের প্রত্যাশিত গড় আয়ু কমে। তথ্যে দেখা যায়, ২০১৪ সালে পুরুষদের প্রত্যাশিত গড় আয়ু যেখানে ছিল ৭৬ দশমিক ৫ বছর, ২০১৫ সালে তা নেমে এসেছে ৭৬ দশমিক ৩ বছরে। একইভাবে মহিলাদের প্রত্যাশিত গড় আয়ু ৮১ দশমিক ৩ হতে নেমে এসেছে ৮১ দশমিক ২ বছরে।

পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রে হৃদরোগে, ডেমেনশিয়ায় (স্মৃতিলোপ পাওয়া) এবং শিশুদের মধ্যে দুর্ঘটনাজনিত কারণে মৃত্যুর হার বেড়েছে। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রে সর্বশেষ এ রকম প্রত্যাশিত গড় আয়ু কমে গিয়েছিল ১৯৯৩ সালে, যখন সেখানে এইডস রোগ নিয়ে সংকট চরমে পৌঁছেছিল।

আরো পড়ুন : বাংলাদেশিদের গড় আয়ু ৭০ বছর ১ মাস : বিবিএস

যুক্তরাষ্ট্রে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর থেকেই মানুষের প্রত্যাশিত গড় আয়ু বাড়ছিল। তবে এবার তা কমা শুরু হওয়ায় বিশেজ্ঞরা  উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। বিশেষ করে গত কয়েক বছরে যুক্তরাষ্ট্রে মানুষের গড় আয়ু প্রায় একই জায়গায় আছে, বাড়ছে না। তারপর এখন তা কমছে।

যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা যায় হৃদরোগে। মৃত্যুর হার বেড়ে যাওয়ার জন্য মানুষের স্থূলতাজনিত নানা রোগ এবং অর্থনৈতিক সংকটকে দায়ী করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ড্রাগ-সংক্রান্ত মৃত্যুর হার বেড়ে গেছে। এ ধরনের মৃত্যুকেও গড় আয়ু কমার কারণ হিসেবে ধরা হচ্ছে।

সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট



মন্তব্য