kalerkantho


ক্রেতার বেশে সুন্দরী চোর! আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১২:৫১



ক্রেতার বেশে সুন্দরী চোর! আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা

পরনে দামি পোশাক। সুন্দরী ক্রেতার আতঙ্কে এখন তটস্থ শিলিগুড়ি শহরের ব্যবসায়ীরা। কারণ, দোকানির মুহূর্তের অসতর্কতায় দোকানের শোকেসে সাজিয়ে রাখা দামি জিনিস চালান হয়ে যাচ্ছে তাঁদের ব্যাগে। দোকানে সিসিটিভি না থাকলে ধরার কোনো উপায় নেই, এতটাই সুকৌশলী ওইসব চোরেরা। সম্প্রতি এমন কয়েকটি ঘটনায় ধন্দ বাড়ছিল। দুই দিন আগে বিধান মার্কেটের একটি দোকানে  মজুত পণ্যের হিসাবে গরমিলের খোঁজ করতে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজে বিষয়টি ধরা পড়ায় তা সামনে এসেছে। এ ধরনের একাধিক অভিযোগ থাকলেও তেমন কোনো তথ্যপ্রমাণ মেলেনি বলে পুলিশ জানিয়েছে।


আরো পড়ুন :


ব্যবসায়ীরা লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ খতিয়ে দেখবে বলে জানান শিলিগুড়ি পুলিশের ডিসি গৌরব লাল। এদিকে সুন্দরী চোরের আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা এতটাই ভীত হয়ে পড়েছেন যে, দোকানে দামি জিনিস সাজিয়ে রাখতে ভরসা পাচ্ছেন না তাঁরা। শনিবার বিধান মার্কেটের ব্যবসায়ী শুভঙ্কর পাল তাঁর প্রসাধনী সামগ্রীর দোকানে বিক্রি হওয়া আর মজুত থাকা পণ্যের হিসাব মেলাতে পারছিলেন না। এনিয়ে তিনি কর্মীদের বকাবকি করেন। শেষে দোকানে লাগানো সিসিটিভিতে নজর রাখতেই ফুটেজ দেখে তাঁর চোখ কপালে ওঠার জোগাড় হয়।


আরো পড়ুন :


দেখা যায়, দুই মহিলা তাঁর দোকানে আসেন। তার মধ্যে একজন এটা-ওটা দাম করে কর্মীদের ব্যস্ত রাখেন। অন্যজন ধীরে ধীরে লিপগ্লস, লিপ লাইনার, কাজল মিলিয়ে প্রায় দুই হাজার টাকার জিনিস ব্যাগে ঢুকিয়ে নেন। এরপর কিছুই পছন্দ হয়নি বলে কেনাকাটা না করে ফিরে যান। দোকান মালিক শুভঙ্করবাবু জানান, ওই মহিলারা এর আগেও তাঁর দোকানে এসেছেন। তবে সেবার হয়তো সুযোগ পাননি।

শিলিগুড়ির বিধান মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক চিত্তরঞ্জন দাস বলেন, মাঝে মধ্যেই কোনো না কোনো দোকানে চুরি হচ্ছে। নজরদারির জন্য কয়েকজন সিভিক ভলান্টিয়ারকে মোতায়েন করা হয়েছিল। কিন্তু কয়েকদিন পর থেকে তাঁদের দেখা মেলেনি। দামি পোশাক আর ভদ্রস্থ চেহারার মহিলারাও হাত সাফাইয়ে নেমেছেন।

 



মন্তব্য