kalerkantho


ঝালের চোটে যে ভূত পালাবে!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৯:০৯



ঝালের চোটে যে ভূত পালাবে!

মরিচের নাম জলোকিয়া! নামটি খাস ভুটানি। মানে যা-ই হোক না কেন‚ ঝালের চোটে যে ভূত পালাবে‚ তাতে শতকরা একশো ভাগ গ্যারান্টি!

বাংলাদেশের পাহাড়ি অঞ্চল এবং ভারতের আসাম, নাগাল্যান্ড ও মণিপুরে জন্মায় এই মরিচ। ২০০৭ সালে ঝালের তীব্রতার জোরে এই মরিচ জায়গা করে নেয় গিনেস বুক-এ। স্কোভিল হল ঝাল মাপার একক। সেই স্কোভিলের মাপে ভূত জলোকিয়া টেক্কা দিয়েছে তার প্রতিদ্বন্দ্বীদের।

তবে ভূতেরও বাবা আছে। সম্প্রতি লিঙ্কনশায়ারের এক মরিচ স্কোভিলের মাপে এগিয়ে গেছে ভূত জলোকিয়ার থেকে। তাতে কিছু এসে যায়নি ভূতের। বাংলাদেশ ও ভারতের মাটিতে একাই ব্যাটিং করে যাচ্ছে সে। জিভে দিলে চোখ দিয়ে পানি অনিবার্য। জিভে এমন জ্বালা শুরু হয়‚ যে দুধেও বন্ধ হয় না সেই জ্বলন।

উত্তর পূর্ব ভারতের বিভিন্ন খাবারে ভূত জলোকিয়ার প্রভাব অসীম। সিকিম‚ অরুণাচলে চীনা প্রভাবের মোমো‚ নুডলস‚ ত্রিপুরায় বাংলাদেশি প্রভাবের খানাপিনা‚ আসামের টকপ্রধান খাবার‚ নাগাল্যান্ডের বাঁশসহ পর্ক ডিশ অথবা মণিপুরের মাছ দেওয়া রেড রাইসই হোক‚ ভূত জলোকিয়া ইজ মাস্ট। লাল‚ কমলা‚ হলুদ এবং খয়েরি রঙ-এর এই মরিচ ইদানিং জনপ্রিয় হয়েছে দিল্লির বিভিন্ন রেস্তোরাঁতেও।


মন্তব্য