kalerkantho


স্বামী নিত্যানন্দ ও তামিল অভিনেত্রীর সেক্স টেপটি নকল নয়, আসল!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ নভেম্বর, ২০১৭ ১৬:২৮



স্বামী নিত্যানন্দ ও তামিল অভিনেত্রীর সেক্স টেপটি নকল নয়, আসল!

আজ থেকে সাত বছর আগে ২০১০ সালে দক্ষিণ ভারতের স্বঘোষিত ঈশ্বর মানব স্বামী নিত্যানন্দের একটি সেক্স টেপ অনলাইনে ভাইরাল হয়েছিল। সেখানে তামিল অভিনেত্রী রঞ্জিতার সঙ্গে প্রায় বিবস্ত্র অবস্থায় দেখা গিয়েছিল নিত্যানন্দকে।

সেই ঘটনায় সারা দেশে বিশেষ করে দক্ষিণ ভারতে তুমুল হট্টগোল হয়েছিল। সাতবছর পর কেন্দ্রীয় ফরেনসিক রিপোর্ট দিয়েছে যে ওই সেক্স টেপটি আসল।

বেশ কয়েক মিনিটের সেই ভিডিওতে নিত্যানন্দ ও রঞ্জিতা একে অপরের সঙ্গে মিলনে মেতেছিলেন। সেই ভিডিও হাতে আসে বেশ কয়েকটি তামিল চ্যানেলের। তারা সেই ভিডিও দেখানোয় হইচই পড়ে যায়।

নিত্যানন্দকে আড়ালে ডাকা হতো ‘সেক্স স্বামী’ বলে। যৌন কেচ্ছা তারও কিছু কম নেই। অভিযোগ এমনটাই। কিন্তু ওই ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পরে স্বামী নিত্যানন্দ ও অভিনেত্রী রঞ্জিতা দুজনেই তা অস্বীকার করেন।

ভিডিওতে দেখতে পাওয়া মহিলা তিন নন বলে জানান রঞ্জিতা। আর নিত্যানন্দ আরও একধাপ এগিয়ে ভিডিও টেপ নিয়ে আদালতে চলে যান।

রঞ্জিতা প্রেস কনফারেন্স করে জানান, ভিডিওটি জাল। তিনি সেই মহিলা নন। সেই সময়ে তিনি ধ্যানপীঠম আশ্রমে অন্য মহিলা ভক্তদের সঙ্গে ছিলেন বলেও দাবি করেন তিনি। এই সাজানো ঘটনায় তাঁর ক্যারিয়ায় নষ্ট হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন।

পরে বেঙ্গালুরুর আদালতে রঞ্জিতা মামলাও দায়ের করেন। সেই ঘটনার সিডি নিয়ে সেক্স টেপ কাণ্ডে শুনানির আগে সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দেয় আদালত। সেইসময়ে এই ঘটনায় ঝড় বয়ে গিয়েছিল দক্ষিণ ভারতে।

এরপর ২০১২ সালে নিত্যানন্দ কর্ণাটকের সিআইডি পুলিশের হাতে একটি মার্কিন সংস্থার রিপোর্ট তুলে দেন। সেখানে তিনি দাবি করেন, চার মার্কিনি গবেষক এই সিডি পরীক্ষা করে ভিত্তিহীন ও জাল বলে জানিয়েছে। সেইসময়ে সিআইডি এই ঘটনার তদন্ত করছিল।

সম্প্রতি বেঙ্গালুরুর ফরেনসিক সায়েন্সেস ল্যাবরেটরি সেই সেক্স টেপ-এর রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। সেখানে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, ভিডিওতে নিত্যানন্দ ও রঞ্জিতা বলে যাদের দাবি করা হয়েছে তাঁরা আসল মানুষ। অন্য কেউ নন। অর্থাৎ টেপটির সত্যতা রয়েছে।

স্বামী নিত্যানন্দ একজন স্বঘোষিত হিন্দু গডম্যান। নিত্যানন্দ ধ্যানপীঠম তৈরি করেছেন তিনি। শুধু ভারতেই নয়, সারা বিশ্বে স্বামী নিত্যানন্দের ভক্ত রয়েছে। তাকে ভগবানের অবতার রূপে বিশ্বাস করেন ভক্তরা। তার সংস্থা রোপ যোগা ও পোল যোগায় দুটি গিনেস বিশ্বরেকর্ড করেছে।

সূত্র: ডেক্কান ক্রনিকলস


মন্তব্য