kalerkantho


ডেরার আইটি বিভাগের প্রধান গ্রেপ্তার, আরো বিপাকে রাম রহিম

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১১:৪৭



ডেরার আইটি বিভাগের প্রধান গ্রেপ্তার, আরো বিপাকে রাম রহিম

ধর্মীয় সংগঠন ডেরা সাচা সৌদার তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের প্রধানকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। ওই সংগঠনের প্রধান গুরমিত রাম রহিমকে ইতিমধ্যেই ধর্ষণের দোষে ২০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে বিশেষ সিবিআই আদালত।

এবার ডেরার আশ্রমের আইটি প্রধানকে গ্রেপ্তার করে তদন্তের জাল গুটিয়ে আনতে চাইছে পুলিশ। ধৃত বিনীত কুমারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, পুলিশ ডেরায় তল্লাশি চালানোর আগে তিনি বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যে ঠাসা হার্ডডিস্ক সরিয়ে ফেলেন। সিরসার পুলিশ সুপার অশ্বিনী শেনভি জানিয়েছেন, বিনীতকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ৬০টি হার্ড ডিস্ক বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের নির্দেশে ডেরার সদর দপ্তর সিরসায় তল্লাশির আগেই সেখানকার বেশ কয়েকটি কম্পিউটার ও হার্ড ডিস্ক থেকে তথ্য সরিয়ে ফেলে ধৃত। তাঁকে সমন পাঠায় পুলিশ। তাঁর কাছ থেকে জানতে চাওয়া হয়, কী কারণে তিনি ওই সব গুরুত্বপূর্ণ ইলেকট্রনিক নথি সরিয়েছেন? কোনো সদুত্তর দিতে না পারায় এদিন তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। আইটি বিভাগের প্রধানকে ছাড়াও পুলিশ ধর্ষক বাবার ব্যক্তিগত চালককেও গ্রেপ্তার করেছে। গুরমিতের শাস্তি ঘোষণার দিন ডেরার একটি দামি গাড়িতে ফুলকান গ্রামের কাছে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

অশান্তিতে ইন্ধন জোগাতে ওই কুকর্মটি করেছিলেন অভিযুক্ত চালকই। প্রমাণ লোপাটের অভিযোগে এদিন তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাজস্থানে গাঢাকা দিয়ে লুকিয়ে ছিলেন ওই চালক। এর পাশাপাশি, ডেরার এক সদস্য ভাগ সিংকেও ১৪ লাখ টাকা সমেত গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশি তল্লাশিতে ডেরার ভেতরে বেশ কয়েকটি গোপন সুড়ঙ্গ মিলেছে। ওই সুড়ঙ্গের ভেতর কোনো গুপ্তধন লুকিয়ে রাখা রয়েছে কি না, জানতে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। ডেরা প্রধান গুরমিতের শাস্তি ঘোষণার দিন হরিয়ানার পঞ্চকুলা ও সিরসায় তাণ্ডব চালায় ডেরা সদস্যরা। পুলিশের সঙ্গে তাণ্ডবকারীদের সংঘর্ষে প্রাণ হারান অন্তত ৩৫ জন।

 


মন্তব্য