kalerkantho


কাঁটাতারে বিলীন হয়ে গেল যুগলের ভালবাসা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ আগস্ট, ২০১৭ ০১:১৪



কাঁটাতারে বিলীন হয়ে গেল যুগলের ভালবাসা

ভৌগোলিক অবস্থান আটকাতে পারেনি প্রেমের বাঁধনকে। দুটি দেশের মাঝখানে দাঁড়িয়ে আছে কাঁটাতারের দেয়াল।

এই কাঁটাতারই অটল প্রহরীর মত বাধা হয়ে দাঁড়ালো যুগলের কাছে। প্রেমের পরিণতি আটকে গেল ভারত–বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী এলাকায়।

২৫ বছরের প্রেমিকের বাস কোচবিহারে এবং ১৮ বছরের প্রেমিকা থাকেন বাংলাদেশের কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলায়। ভারত–বাংলাদেশের সীমান্ত শূন্যরেখা এলাকায় বসবাস করে প্রেমিক যুগল। দু’‌জনের মধ্যে ফোনে কথাবার্তা হত। সীমান্তের কাঁটাতারের মধ্যে দূর থেকে দেখাও করত দু’‌জনে। দু’‌টি ভিন্ন দেশ, ভিন্ন ধর্ম সবকিছুকে উপেক্ষা করে প্রেমিক যুগল স্বপ্ন দেখে একসঙ্গে ঘর বাঁধার।

তরুণ ঠিক করে নেয় যেকোন উপায় সীমান্তের কাঁটাতার টোপকে ভারতে প্রেমিকা এনে ঘর বাঁধবে। পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রেমিক তরুণীকে আনতে লুকিয়ে কাঁটাতার পার হয়ে বাংলাদেশে ঢোকে।

প্রেমিকাকে সীমান্ত পার করে ভারতে পাঠাতে সফল হলেও নিজে আটকে পড়ে তরুণীর পরিবারের হাতে। বিষয়টি গড়ায় দুই দেশের সীমান্ত রক্ষীবাহিনী বিএসএফ ও বিজিবি পর্যন্ত।

বিএসএফ ও বিজিবি সূত্রের খবর, গত সোমবার গভীর রাতে তরুণী ভারতে এবং ছেলেটি বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেন। তরুণীকে বাংলাদেশের নাগেশ্বরী সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করাতে সফল হয় প্রেমিক। এরপর নিজে ভারতে প্রবেশ করতে গিয়ে ধরা পড়ে যায় গ্রামবাসীর হাতে। এই নিয়ে চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয় সীমান্ত এলাকর দুটি গ্রামে।

এরপর মঙ্গলবার বিএসএফ বালাবাড়ী বিএসএফ ক্যাম্পের ইনচার্জ রাকেশ সিং এবং বিজিবির রামখানা ক্যাম্পের ইনচার্জ নায়েক সুবেদার আবদুস সোবাহান বৈঠক করেন পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য। বৈঠকে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তরুণকে বিএসএফের হাতে এবং তরুণীকে বিজিবির হাতে তোলা দেওয়া হয়। প্রশ্ন থেকেই গেল ভালবাসা কি কাঁটাতারে খোঁচায় রক্তাক্ত হল। না কাঁটাতারে বিলীন হয়ে গেল যুগলের ভালবাসা।      


মন্তব্য