kalerkantho


নিজের খেয়ে বনের মোষ তাড়াতে নেই!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ মার্চ, ২০১৭ ২০:৩১



নিজের খেয়ে বনের মোষ তাড়াতে নেই!

নিজ শহরের সরকারি খালের পরিবেশকে দৃষ্টিনন্দন করার ইচ্ছায় তাতে কয়েকশ গোল্ড ফিশ ছেড়েছিলেন  হান্স ভ্যান মানেন নামের এক ডেনিশ নাগরিক। কিন্তু ফল হল যেন, ‘কী করিলাম কী হইলো, ছাতু মাখিলাম... হইলো’ ধরনের।  

নেদারল্যান্ডসের এন্টারপ্রাইজ এজেন্সি (আরভিও) হান্সকে ভেনেনদাল শহরের ওই খাল থেকে মাছগুলো আবার তুলে ফেলার নির্দেশ দিয়েছে। এজন্য এক মাস সময়ও বেঁধে দিয়েছে তারা। এর মধ্যে মাছগুলো খাল থেকে সরিয়ে ফেলা না হলে সরকারি উদ্যোগে তা করা হবে এবং এ বাবদে যাবতীয় খরচ দিতে হবে হান্সকেই।

স্থানীয় একটি ওয়েবসাইটের বরাতে বিবিসি খবর দিয়েছে, বাহারি গোল্ড ফিশগুলো গত জুন মাস থেকে ওই খালে সাঁতরে বেড়াচ্ছে। এলাকার সৌন্দর্য বাড়ানোর মহৎ ইচ্ছায় হান্সের এই উদ্যোগে সাহায্য করেছিলেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

তিনি মোট ২৮০টি বাহারে মাছ খালে ছেড়েছিলেন এর মধ্যে ছিল ৮০টি গোল্ড ফিশ। বাকিগুলো ছিল প্রায় একই ধরনের অন্যা প্রজাতির উজ্জ্বল কমলা রঙের মাছ।

বিবিসি মনিটরিংয়ের খবর, ডাচ সরকারি মন্ত্রণালয়ের অধীন সংস্থা আরভিও বলেছে , পরিবেশবাদী একটি গোষ্ঠীর কাছ থেকে অভিযোগের পাওয়ায় তারা খাল থেকে মাছ সরিয়ে নেওয়ার এই নির্দেশ জারি করে।

পরিবেশবাদীরা সুন্দর পরিবেশের সহায়ক এমন উদ্যোগের বিরোধীতা করলো কেন? এর জবাব হচ্ছে- মাছগুলোর প্রভাবে স্থানীয় জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়তে পারে।

পরিবেশবাদীদের মতে, গোল্ড ফিশের ডিম খালের মধ্যে দিয়ে অন্য জলাশয়ে গিয়ে পড়তে পারে। এটা স্থানীয় জীববৈচিত্র্যের জন্য হুমকি হয়ে উঠতে পারে। এছাড়াও অন্যান্য মাছের প্রজনন প্রক্রিয়ায় এই বাহারি-রঙিন মাছগুলো যুক্ত হলে স্থানীয় মাছের প্র্রজাতি বদলে যেতে পারে।

আরভিওর মতে, মাছগুলো খালে ছেড়ে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ আইন ভঙ্গ করেছেন।

জবাবে হান্স জানান, তিনি অবশ্যই সরকারের নির্দেশ মানবেন, যদিও এই সিদ্ধান্তে তিনি মর্মাহত।

তিনি বলেন, বিশেষজ্ঞরা যদি মনে করেন এরা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক, তাহলে তা আমাকে মানতেই হবে। জীবজন্তু আমি ভালবাসি। মাছগুলোর কথা ভেবেই তাদের আমি মুক্ত পরিবেশে ছেড়েছিলাম।  

তবে শেষে তিনি জানান, খাল থেকে তোলার পর মাছগুলো বেচে দেবেন। খালের পানিতে সেগুলো বেশ মোটাতাজা হয়েছে। আর মাছগুলো বিক্রির অর্থ দিয়ে অন্য প্রজাতির বাহারি মাছ কিনবেন যেগুলো জীববৈচিত্র্যের জন্য ক্ষতিকর নয়।


মন্তব্য