kalerkantho


মুসলিম বিদ্বেষী গোষ্ঠীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে যুক্তরাষ্ট্রে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১২:২৮



মুসলিম বিদ্বেষী গোষ্ঠীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে যুক্তরাষ্ট্রে

ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর যেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুসলমানদের বিপদ কাটছেই না। একে তো ডোনাল্ড ট্রাম্প নানা নীতিমালা তৈরি করে মুসলিমদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ কঠিন করে তুলেছেন অন্যদিকে মার্কিনিদের মধ্যেও বাড়ছে মুসলিম বিদ্বেষ।
সম্প্রতি এক জরিপে দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিমদের। জরিপে দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রে গত বছরের তুলনায় মুসলমান বিদ্বেষী গোষ্ঠীর সংখ্যা প্রায় তিনগুণ বেড়েছে।   অতীতে মুসলিম বিদ্বেষী গোষ্ঠীর সংখ্যা ৩৪ থাকলেও বর্তমানে তা শতাধিক হয়ে গেছে।
সাম্প্রতিক প্রকাশিত এক রিপোর্টে এ উদ্বেগজনক তথ্য পাওয়া গেছে। এ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘সার্দান প্রোভার্টি ল সেন্টার’।
প্রতিবেদনে বলা হয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্য গোটা যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম বিদ্বেষ অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া গত জুন মাসে অরল্যান্ডোর নাইট ক্লাবে হামলার ঘটনাতেও মার্কিনিদের মাঝে মুসলিম বিদ্বেষ অনেকাংশে বেড়ে গেছে।
এ রিপোর্টটি তৈরির কাজে প্রধান দায়িত্ব পালন করেছেন মার্ক পোটোক। তিনি বলেন, ‘স্টিভ ব্যানন, স্টিভেন মিলার এবং কেলিয়্যান কনওয়ের মতো ট্রাম্প প্রশাসনের বেশ কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তি মুসলিম বিদ্বেষী।


মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম বিদ্বেষী শীর্ষপর্যায়ের একজন ব্যক্তি হলেন মাইকেল ফ্লিন। তবে তিনি সম্প্রতি বিদায় নিয়েছেন। অবশ্য এতেও মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ যে কমবে, এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই। কারণ আরও কয়েকজন রয়েছেন যারা ভয়াবহ মুসলমান বিদ্বেষী। তাদের মধ্যে অন্যতম স্টিভ ব্যানন, স্টিভেন মিলার এবং কেলিয়্যান কনওয়ে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে তৎপর রয়েছে কট্টর বর্ণবাদী নয়া নাৎসীসহ নানা উগ্রবাদী গোষ্ঠী। এসব গোষ্ঠীর সংখ্যা এখন বেড়ে চলেছে। প্রায় নয় শতাধিক গোষ্ঠী যুক্তরাষ্টে এ ধরনের আদর্শে বিশ্বাস করে। ২০১৫ সালের তুলনায় এসব গোষ্ঠীর সংখ্যা বর্তমানে প্রায় তিন শতাংশ বেড়েছে। সূত্র : আল জাজিরা।


মন্তব্য