kalerkantho


জেনে নিন মানুষের স্বাস্থ্য রক্ষায় প্রকৃতির প্রভাব

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:০৭



জেনে নিন মানুষের স্বাস্থ্য রক্ষায় প্রকৃতির প্রভাব

বন-জঙ্গল বা প্রকৃতির মাঝে হাঁটাচলা করা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো৷ কিন্তু কতটা ভালো তা হয়ত অনেকে জানেন না৷ সবুজের মাঝে কিছুক্ষণ সময় কাটালে হার্ট, হাড়, গলা ও মস্তিস্কের মতো অঙ্গের কতটা উপকার হয়, তা জেনে নিন আজকের প্রতিবেদন থেকে।

সবুজের বুকে হাঁটলে মনের শান্তি, দেহের উপকার
বন কিংবা কোনো সবুজ বাগানে ঘণ্টাখানেক হাঁটা বা সাইকেল চালানোর পর শরীর আর মন সত্যিকার অর্থেই শান্ত হয়ে যায়৷ প্রকৃতি আর মানুষের মধ্যে যে এক গভীর সম্পর্ক রয়েছে এবং মানুষের স্বাস্থ্যের ওপর প্রকৃতি যে ইতিবাচক প্রভাব ফেলে তা গবেষণায়ও প্রমাণ হয়েছে৷ গবেষকরা মানুষের দেহ-মনে প্রকৃতির প্রভাবকে বলেন ‘বায়ো-এফেক্ট’৷

প্রকৃতি থেকে অক্সিজেন
প্রতি পাঁচ জনের মধ্যে একজন জার্মান বনের বড় বড় গাছের সাড়ির ভেতর দিয়ে ঘুরতে বা বেড়াতে পছন্দ করেন৷ কেউ একা যান আবার কেউবা পরিবারের সকলকে নিয়ে হাঁটেন, সাইকেল চালান৷ বনের সবুজ গাছ-পাতার অক্সিজেন মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা রাখে৷ বিশেষজ্ঞদের মতে মানুষের শরীর ও মনের ওপর গাছের রয়েছে এক সার্বজনীন প্রভাব৷

সুস্থ হৃদপিণ্ড
ক্রীড়া বিশেষজ্ঞরা জানান, ঘাস এবং পাতার ওপর দিয়ে হাঁটার সময় পায়ের পেশি, পা, হাড়, হাঁটু , নিতম্বসহ সারা দেহে রক্ত সঞ্চালন দ্রুত হয়৷ তাঁরা জানান যে, বনের ভেতর বা গাছের নীচ দিয়ে সপ্তাহে অন্তত তিন দিন ৩০০০ পা হাঁটলে হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যেতে পারে৷ তাছাড়া বুক ভরে নিঃশ্বাস নিলে ফুসফুস ভালো থাকে৷

শ্রবণমান শাণিত করে
গাছের পাতার শব্দ শ্রবণমানকে খানিকটা শাণিত করে৷ তাই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ, বনে গিয়ে চোখ বন্ধ করে এবং খুব মনোযোগ দিয়ে প্রকৃতির শব্দ শুনুন৷

অপারেশনের রোগীরও উপকার
সবুজ গাছ-গাছালির শক্তি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের এক সমীক্ষা থেকে জানা গেছে যে, অপারেশনের পর যেসব রোগী ঘরের জানালা দিয়ে সবুজ গাছপালা দেখেছেন, তাঁদের ব্যথার ঔষধ কম নিতে হয়েছে এবং তাঁরা তাড়াতাড়ি বাড়িতে যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন৷ বলা বাহুল্য, ক্লিনিকটি ছিল শহরের কোলাহল থেকে অনেক দূরে, সম্পূর্ণ সবুজে ঘেরা একটি জায়গায়৷ গবেষকরা জানান, প্রতিটি ঋতুর ভিন্ন ভিন্ন রূপ উপভোগ করলে শরীর ও মনকে সুস্থ রাখা অনেক সহজ৷

প্রকৃতির আরো অবদান
নানা অসুখের চিকিৎসায় হাজার বছর আগে থেকেই ঔষধি গাছ ব্যবহার করা হয়৷ বন-জঙ্গলে হাঁটতে গেলে সেরকম নানা গাছের সন্ধান পাওয়া যায়, যেগুলো মাথাব্যথা, পেটব্যথা, কাশি, ত্বকের ইনফেকশন, ফুলে যাওয়া, স্বাসকষ্টসহ অনেক রোগের মহৌষধ৷ প্রকৃতি থেকে উপকার পাওয়ার জন্য প্রকৃতিকে রক্ষা করাও মানুষের দায়িত্ব৷

মস্তিষ্কের বিশ্রাম হয়
পাখির কলকাকলি গাছের শুকনো পাতার মর্মরধ্বনি মস্তিষ্ককে বিশ্রাম দেয়৷ বিশেষজ্ঞরা জানান, তখন নাকি মানুষের মগজে অনেকটা ছুটি কাটানোর মতো অনুভূতি হয়, মানসিক চাপ কমে৷ বড় কোনো বাগান বা বনের ভেতর মাত্র ১০০ মিটার হাঁটার পর মানসিক অস্থিরতা অর্ধেক কমে যায়৷

- ডিডাব্লিউ

। ।

মন্তব্য