kalerkantho


শত শত বছর ধরে মানুষ বসবাস করছে কবরস্থানে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০১:২৪



শত শত বছর ধরে মানুষ বসবাস করছে কবরস্থানে

মমি ও পিরামিডের জন্য বিখ্যাত মিশরের এই শহরটিকে মৃতদের শহরও বলা হয়। এখানে কবরগুলি ঘরের আকৃতির মতো।

এখানে জানালা, দরজা এবং ছাদে জলের ট্যাংকও রয়েছে। কায়রোর উপকণ্ঠে অবস্হিত এই শহরের স্থানীয় লোক এল-আরাফা নামে পরিচিত।

এখানে শত শত সমাধির মাঝখানে পাঁচ লক্ষ জনগণ বসবাস করে। সপ্তম শতাব্দী থেকে অর্থাৎ ১৪০০ বছর পর্যন্ত তারা এই সমাধির মাঝখানে বসবাস করছেন। কবরগুলিকে ঘরের আকৃতি দেওয়া হয়েছে। যেখানে একটি ছোট বাগানও রয়েছে। শুধুামাত্র তাই নয় কবরগুলিকে সাজানোও হয়েছে।

মৃতদের এই শহরে কবরের তত্ত্বাবধানার জন্য একটি করে লোক থাকে। কায়রোর লোক এমনভাবে কবরগুলি নির্মাণ করেন যেখানে তার পরিবারও সঙ্গে থাকতে পারে।

জানা যায়, কবরের তত্ত্বাবধায়ক মাসে প্রায় ১২৫ ডলার আয় করেন।

১৯৬০-এর দশকে নাসেরের অধ্যক্ষতা নেতৃত্বে কায়রোতে দ্রুত নগরায়ন ও শিল্পের আধুনিকায়ন হয়েছিল। হোসনি মুবারকের শাসনামলে নির্মিত হয়েছে দুটি স্কুল। ১৯৯২ সনে কায়রো ভূমিকম্পের সময় বহু মানুষকে তাদের পরিবারের সমাধিতে আশ্রয় নিতে বাধ্য করেছিল। বর্তমানে এখানে অপরাধমূলক কার্যক্রমের বৃদ্ধি হয়েছে। সমাধির ভেতরে গোপন স্হান থেকে মাদক পাচার করা হয়।


মন্তব্য