kalerkantho


বিশ্বের সবচেয়ে মোটা নারীর ওজন কি এবার কমবে?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৪:১৬



বিশ্বের সবচেয়ে মোটা নারীর ওজন কি এবার কমবে?

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা নারী হিসেবে পরিচিত মিসরের বাসিন্দা ৩৬ বছরের ইমান আহমেদ আবদুলাটির অবস্থা যে আশঙ্কাজনক, তা বেশ কিছুদিন ধরেই চিকিৎসকরা বলছেন। আর হবেন নাই বা কেন, তার শরীরের ওজন যে ৫০০ কেজিরও বেশি!
তবে আশার কথা হলো তিনি চিকিৎসার মাধ্যমে ওজন কমিয়ে নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এ জন্য ভারতের মুম্বাইয়ের সাইফি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যোগাযোগ করেছেন। এ জন্য শনিবার তিনি ভারতের ভিসাও পেয়েছেন।

তবে তার ভারতে যাওয়ার বিষয়টিও কম ঝামেলার নয়। কারণ কোনো বিমান সংস্থাতেই তার বসার উপযোগী কোনো আসন নেই। এ ছাড়া গত ২৫ বছর বাড়ির বাইরে যাননি তিনি। ফলে বিমানযাত্রা মোটেও সহজ বিষয় নয়।

তবে শেষ পর্যন্ত তার ভারতে যাত্রার ব্যবস্থা হয়েছে। তার জন্য এয়ারবাসের একটি বিমানের আসনে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে তিনি আজই মুম্বাইয়ের সাইফি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হবেন।

জানা যায়, শরীরের বহর বেড়েই চলেছে ইমানের। পারিবারিক সূত্রে খবর, জন্মের সময় ইমানের ওজন ছিল ৫ কেজি। মাত্র ১১ বছর বয়সে তিনি হৃরোগে আক্রান্ত হন বলে পরিবারের দাবি। এরপরই দেহের অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়ার ফলে শয্যাশায়ী হয়ে পড়েন তিনি। মা ও বোন তার সেবায় নিত্য যুক্ত রয়েছেন।

চিকিৎসকদের মতে, পরজৈবিক সংক্রমণের ফলে তিনি এলিফ্যান্টিয়াসিস রোগে আক্রান্ত হন। এই অসুখে মানুষের হা ও পা অতিরিক্ত ফুলে ওঠে। আত্মীয়দের দাবি, অতীতে চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন যে, শরীর থেকে অপ্রয়োজনীয় তরল না বেরোনোর ফলেই ইমানের ওজন বাড়ছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, অবিলম্বে অস্ত্রোপচার না করা হলে ইমনের জীবনসংকট দেখা দিতে পারে।

অতিরিক্ত মেদবৃদ্ধির কারণেই কখনও স্কুলে যেতে পারেননি ইমান। কেউ কেউ আবার মনে করেন, শৈশবে বাবার মৃত্যুতে তিনি মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন বলেই শরীরের ওজন দ্রুত বাড়তে শুরু করে।

তবে যে কারণেই তার শরীরের এ অবস্থা হোক না কেন, চিকিৎসকরা বলছেন বাঁচতে চাইলে দ্রুত ওজন কমাতে হবে। আর এ কারণেই তিনি হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন।


মন্তব্য