kalerkantho


তিনি বাতকর্মের দেবতা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৮:৫৫



তিনি বাতকর্মের দেবতা!

ছবি: শিল্পীর তুলিতে ইনুদের ছবি

প্রাচীনকালে বহু দেবতার পূজার বিরোধিতা করতেন ঋষিরা। তা ছাড়া যেনতেনভাবে কল্পনায় দেবতাদের টেনে আনার ভুরি ভুরি প্রমাণ পৃথিবীজুড়ে রয়েছে। প্রাচীন সভ্যতাতে এ বিষয়টি একেবারেই স্বাভাবিক ছিল বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। প্রাচীন ভারত ছাড়াও প্রাচীন মিশর, আফ্রিকা, চিন, জাপান প্রভৃতি দেশে এমন সব বিষয়ের দেবতা রয়েছে, যা অনেক সময়েই আমাদের কল্পনাতেও আসে না। সেই সব উদাহরণকে ছাড়িয়ে গেছে  আমেরিকার প্রাচীন জাতি 'ইনু'দের কল্পনা।

আমেরিকা মহাদেশের উত্তরাংশের বাসিন্দা ইনু জাতি। তারা এমন এক উপদেবতায় বিশ্বাসী, যাকে বাতকর্মের অধিষ্ঠাতা বলে মেনে নেওয়া হয়। 'মাতশিশকাপিউ' নামে এই দেবতা মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করেন বাতকর্মের আওয়াজের মধ্য দিয়ে, এমনটাই বিশ্বাস ইনুদের। অন্য দেবতারা যেখানে স্বপ্নের মাধ্যমে মানুষকে বিভিন্ন নির্দেশ দেন, সেখানে মাতশিশকাপিউ বাতকর্মের শব্দে জানিয়ে দেন ভূত-ভবিষ্যৎ-বর্তমান।

ইনু জনশ্রুতি অনুসারে, পুরুষরা যখন নারীসঙ্গ বিবর্জিত অবস্থায় ঘন ঘন বায়ুত্যাগ করে, তখন বুঝতে হবে তার ওপরে মাতশিশকাপিউ ভর করেছে। বাতকর্মের আওয়াজের তারতম্য অনুযায়ী মাতশিশকাপিউ'র প্রত্যাদেশের বৈচিত্র নিরূপিত হয়।

বাতকর্মের আওয়াজ থেকে মানে বার করা বেশ কঠিন কাজ। এর জন্য দক্ষ অনুবাদকও রয়েছেন ইনুদের সমাজে।

মাতশিশকাপিউর বার্তা বেশ জটিল। সাধারণ তার মর্ম বুঝতে পারে না, এমনটাই বিশ্বাস ইনু জাতির। সূত্র: এবেলা

 


মন্তব্য