kalerkantho


মাটিতে নয়, সোজা আকাশের দিকে উঠে গেছে যে বন!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৫:০৩



মাটিতে নয়, সোজা আকাশের দিকে উঠে গেছে যে বন!

একে বলা হচ্ছে 'লম্ব বনাঞ্চল'। আকাশছোঁয়া ভবনের পুরোটাই যেন এক বাগান। দূর থেকে বনের মতোই লাগে। চীনের নানজিংয়ে এমন ভবন বানানো হচ্ছে। প্রতিদিন এই মাটি থেকে আকাশে উঠে যাওয়া বন থেকে অক্সিজেন উৎপাদিন হয় ১৩২ পাউন্ড। এগুলো দেখলে বিস্ময়ে হতবাক হয়ে যাওয়া ছাড়া কোনো উপায় থাকে ন।

চীনে এই ভবগুলোকে বলা হয় 'নানজিং টাওয়ার্স'। ২০১৮ সালে ভবগুলোর নির্মাণ প্রক্রিয়া শেষ হলে এরাই হবে এশিয়ার 'ভার্টিক্যাল ফরেস্ট'। নকশা করেছেন ইতালির স্থাপত্যবিদ স্টেফানো বোয়েরি। এমন দুটো টাওয়ারের উচ্চতা ৬৫৬ ফুট ও ৩৫৪ ফুট। এদের মাঝে অবস্থার করছে ১০০০টি উদ্ভিদ।

২৩টি ভিন্ন স্থানীয় প্রজাতির ২৫০০ গুল্মজাতীয় উদ্ভিদকে বাছাই করা হয়েছে এসব ভবনে স্থাপন করার জন্য। বড় টাওয়ারে থাকছে জাদুঘর, একটি গ্রিন আর্কিটেকচার স্কুল এবং রুফটপ ক্লাব। আর ছোটটিতে থাকছে রুফটপ পুল এবং ২৪৭টি কক্ষের হায়াত হোটেল। এদের ব্যালকনিতে শোভা পাচ্ছে দারুণ সুন্দর সব গাছ। বাইরে থেকে এসব ভবনের সৌন্দর্য বয়ানের ভাষা মিলবে না। পুরো একটা বনের মতোই লাগে যা লম্বভাবে উঠে গেছে। স্থানীয় বায়োডায়ভারসিটি রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এই পরিকল্পনা।

অবশ্য স্টেফানো এই প্রথমবারের মতো যে খাড়াভাবে উঠে যাওয়া বনের ডিজাইন করেছেন তা নয়। ইতিমধ্যে মিলানে এমন দুটি ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। এমনই কিছু ভবনের পরিকল্পনা রয়েছে সুইজারল্যান্ডের লসেনেতে বানানোর। ক্রমশ দূষিত হয়ে ওঠা এই পৃথিবীকে আরো বাসযোগ্য করতে এসব বন ব্যাপক ভূমিকা রাখবে বলেই  আশা করা হচ্ছে।

এমন বনের কয়েকটি ছবি দেখে নেওয়া যাক।

সূত্র: ইন্টারনেট

 


মন্তব্য