kalerkantho


মধ্যরাতে তরুণীর জন্য যা করল পুলিশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৪:৫৭



মধ্যরাতে তরুণীর জন্য যা করল পুলিশ

পুলিশের কাজ জনসেবা। কিন্তু জনসাধারণের একটা বড় অংশের মনে পুলিশ সম্পর্কে ধারণা খুব উঁচু নয়।

পুলিশ মানেই দুর্নীতিগ্রস্ত, অসৎ, কর্মবিমুখসহ আরও নানা কারণে এমন ধারণা গড়ে উঠেছে সাধারণ মানুষের মনে। কিন্তু সম্প্রতি দিল্লির এক তরুণীর করা একটি ফেসবুক পোস্ট পুলিশ সম্পর্কে এ হেন ধারণা বদলে দিতে পারে। কী হয়েছিল দিল্লির মেয়ে প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে সে রাতে?

২ জানুয়ারি মধ্যরাতে গাড়ি করে বাড়ি ফিরছিলেন প্রিয়াঙ্কা। আচমকাই তার গাড়িটি খারাপ হয়ে যায়। তিনি সাহায্যের জন্য রাস্তা দিয়ে দ্রুতবেগে ছুটে চলা গাড়িগুলিকে থামানোর চেষ্টা করতে থাকেন। কিন্তু অধিকাংশ গাড়িই তার আবেদনকে উপেক্ষা করে চলে যায়। যে সমস্ত গাড়ি দাঁড়ায়, তারাও সাহায্যের জন্য প্রচুর টাকা চেয়ে বসে। কী করবেন ভেবে পাচ্ছিলেন না প্রিয়াঙ্কা। ভাবছিলেন, তবে কি ওই বিপুল অংকের টাকা দিয়েই এই দুরবস্থা থেকে মুক্তির পথ খুঁজবেন?

সেই সময়েই রাস্তায় দায়িত্বরত একটি পুলিশ চোখে পড়ে তার।

মধ্যরাতে রাস্তায় এক তরুণীকে একা দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে পুলিশ সদস্যরা জানতে চান, কোনো সাহায্যের প্রয়োজন আছে কি না। প্রিয়াঙ্কা নিজের সমস্যার কথা জানান। তখন পুলিশ সদস্যরা নিজেরাই হাত লাগিয়ে সারিয়ে দেন প্রিয়াঙ্কার গাড়িটি। শুধু তাই নয়, তিনি ঠিকমতো বাড়ি পৌঁছেছেন কি না, তাও খোঁজ নেন ফোন করে। পুলিশের এ  ব্যবহারে আপ্লুত প্রিয়াঙ্কা। ফেসবুকে নিজের এই অভিজ্ঞতার কথা লিখে তিনি আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন প্রহ্লাদপুর থানার এএসআই ওম প্রকাশ এবং এএসআই দয়া কিষাণকে।

প্রিয়াঙ্কার এই পোস্টে অজস্র লাইক এবং কমেন্ট পড়তে বেশি সময় লাগেনি। সকলেই পুলিশের এ হেন কর্তব্যপরায়ণতায় মুগ্ধ। প্রিয়াঙ্কা যে পুলিশের প্রতি তার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ফেসবুকে, তাতে খুশি দিল্লির ডিসিপি সাউথ ইস্ট। তিনি টুইটারে প্রিয়াঙ্কার পোস্টটি শেয়ার করে লিখেছেন, আমরা সর্বদা আপনাদের সঙ্গে, আপনাদের জন্য রয়েছি। একজন বিপদগ্রস্ত তরুণীকে সাহায্যর মাধ্যমে মানবিকতায় আস্থা বর্ধিত হোক।


মন্তব্য