kalerkantho


বাংলা উচ্চারণের সংক্ষিপ্ত সূত্রাবলি (৩)

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:৫৪



বাংলা উচ্চারণের সংক্ষিপ্ত সূত্রাবলি (৩)

বাংলা উচ্চারণের বিশেষ কিছু নিয়মকানুন রয়েছে। রেডিও-টিভিতে প্রচারিত খবর, আবৃত্তি বা শিল্পীর কণ্ঠে গান শুনতে গিয়ে আমরা বিষয়টি টের পাই।

বুঝতে পারি, আর দশজন থেকে তাদের উচ্চারণে ভিন্নতা রয়েছে। কিন্তু কিসে তাদের উচ্চারণে ভিন্নতা এনে দেয়, তা বুঝতে পারি না। 'বাংলা উচ্চারণের সংক্ষিপ্ত সূত্রাবলি' আত্মস্থ করার মধ্য দিয়ে আপনিও শুদ্ধ উচ্চারণে বাংলা বলা শিখে নিতে পারেন।

জ্ঞ (জ+ঞ) কিংবা ক্ষ (ক+ষ) থাকলেও আগের অ-কার ও-কারের মতো উচ্চারিত হয়। যেমন যজ্ঞ (জোগগোঁ, লক্ষ্য (লোকখো), রক্ষ (রোকখো), দক্ষ (দোকখো), অক্ষর (ওকখোর), পক্ষ (পোকখো) ইত্যাদি।
কিন্তু এসব নিয়মের ব্যতিক্রম ঘটে ‘না’ অর্থে শব্দের আদিতে ‘অ’ কিংবা ‘অন’ থাকলে অথবা সহিত অর্থে স, সম, সন সংযুক্ত থাকলে। সে ক্ষেত্রে স-এর অ অবিকৃত থাকবে (পরে ই, ঈ, উ, ঊ যা-ই থাকুক না কেন)। যেমন-অস্থির, অধীর, অসুখ, অনুপস্থিত, অনুচিত, অতুল, অমূল্য (ওমুললো হতে পারে), অবিনাশ, অশুভ, অকূল, অদূর, অনূঢ়া, অনতিবিলম্বে, অবিচার, অতিষ্ঠ, অনুদার, সম্পূর্ণ, সম্প্রতি, সবিনয়, সবিশেষ, সমূল, সঠিক, সস্ত্রীক, অব্যয়, অখ্যাতি, অজ্ঞ, অক্ষম, অক্ষর, সক্ষম ইত্যাদি।

সৌজন্যে ভাষা শহিদ কলেজ, গাজীপুর


মন্তব্য