kalerkantho


মাসাবাকে মুক্ত করতে আদালতের সামনে বিক্ষোভ করেন ৮৬ স্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৫:২৮



মাসাবাকে মুক্ত করতে আদালতের সামনে বিক্ষোভ করেন ৮৬ স্ত্রী

৯৩ বছর বয়সে জীবনের ইনিংস থেমে গেল মোহাম্মাদু বেল্লো মাসাবার। তিনি বিয়ে করেছিলেন ৮৬ বার আর সেই সূত্রে সন্তান-সন্ততির সংখ্যা ১৭০। তার মুখপাত্র জানান, গত শনিবার মধ্য নাইজরিয়ার নাইজার স্টেটে পরিবার-পরিজন বেষ্টিত অবস্থায় মারা যান মাসাবা। ২০০৮ সালে রাজধানী মিনার একটি শরিয়া আদালত মাসাবাকে ধর্মীয় আইন ভয়াবহভাবে লংঘন ও বেআইনিভাবে ৮৬ জন নারীকে স্ত্রী হিসেবে গ্রহণের দায়ে অভিযুক্ত করে। আদালত তাকে নির্দেশ দেয় ইসলামী বিধান মোতাবেক সর্বোচ্চ চারজন স্ত্রী রাখতে।

কিন্তু নাইজেরিয়া ও অন্যত্র 'বাবা' (পিতা) নামে সমধিক পরিচিত মাসাবা ওই নির্দেশ মানতে অস্বীকার করেন এবং বলেন তিনি ধর্মীয় কোনো বিধি-বিধান ভঙ্গ করেননি। তার এমন কথাবার্তায় রুষ্ঠ হন আদালত এবং তাকে ধরে গারদে ভরা হয়। কিন্তু এ ঘটনায় উল্টো বেকায়দায় পড়ে যায় আদালত ও দেশটির প্রশাসন। মাসাবার ৮৬ স্ত্রীর সবাই এবং ১৭০ সন্তানের মধ্যে ২০ জন নাইজার রাজ্য আদালতের বাইরে বিক্ষোভ শুরু করে তার মুক্তি দাবিতে। পরিস্থিতি জটিলতর হয়ে এলে তার বিরুদ্ধে করা অভিযোগ তুলে নিতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, মাসাবার মুখপাত্র সালাহু বেল্লো সাংবাদিকদের জানান, মহান আল্লাহর ইচ্ছার প্রতি আনুগত্য, বিশ্বাস আর আত্মনিবেদনের এক ঐতিহ্য রেখে গেছেন তিনি। তবে কীভাবে বা কী কারণে মাসাবার মৃত্যু হয়েছে তা জানা জানায়নি পরিবার। সালাহু বলেন, বাবা কোনো ওষুধ গ্রহণ করতেন না এবং অন্যদেরও তা গ্রহণে নিরুৎসাহিত করতেন। এভাবেই তিনি বেঁচেছিলেন। তার মৃত্যুর সময়ে ৮৬জন স্ত্রীর সবাই তাকে ঘিরে ছিলেন।

 


মন্তব্য