kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ব্রিটেনে ১০ লাখ নারী ঋতুস্রাবকালীন মনোরোগে ভোগেন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ১৬:৫০



ব্রিটেনে ১০ লাখ নারী ঋতুস্রাবকালীন মনোরোগে ভোগেন

প্রতিবছর ১০ লাখ ব্রিটিশ নারী ঋতুস্রাবকালীন নানা জটিলতার কারণে মনোরোগে আক্রান্ত হন বলে জানিয়েছেন জ্যেষ্ঠ স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞরা।

লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের অধ্যাপক ড. নিক পেনি বলেন, এ সময় নারীরা অবাস্তব কিছুর অস্তিত্ব কল্পনা করা, মানসিক অবসাদ এবং মনোরোগেও আক্রান্ত হতে পারেন।

কিন্তু মানসিক স্বাস্থ্য এবং ঋতুস্রাব বিষয়ে সমাজে প্রচলিত অপধারণাগুলোর কারণে বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় নেওয়া হচ্ছে না।

ঋতুস্রাব অবসাদজনিত মানসিক বিশৃঙ্খলার বিষয়টি চিকিৎসাবিদ্যার অনুশীলনে এখনো গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় নেওয়া হচ্ছে না। ড. পেনি বলেন, এ সময় যে হরমোনগত পরিবর্তন ঘটে তার ফলে জেনেটিক দুর্বলতা রয়েছে এমন নারীদের মধ্যেই এ সমস্যা বেশি দেখা দেয়। এর ফলে বেশকিছু পীড়াদায়ক মানসিক ও দৈহিক সমস্যা দেখা দেয়। পীড়াদায়ক মানসিক লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে, মেজাজ মর্জির পরিবর্তন, বিরক্তি ও আত্মবিশ্বাসহীনতা। এসবের ফলে তারা ব্যক্তিগত সম্পর্কে নানা জটিলতায় আক্রান্ত হন এবং সামাজিক ও পেশাগত ক্ষেত্রেও সমস্যাগ্রস্ত হয়ে পড়েন।

তিনি হিসেব করে দেখান, ব্রিটেনের নারীদের ৫ থেকে ১০ শতাংশ এই সমস্যায় আক্রান্ত হন। তার মানে প্রতিবছর যুক্তরাজ্যের প্রায় ১০ লাখ নারী এ সমস্যায় আক্রান্ত হন।

অথচ বিষয়টি নিয়ে তেমন একটা সচেতনতা নেই। আর চিকিৎসাবিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদেরকেও এ বিষয়ে যথেষ্ট প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় না। এমনকি বিষয়টি নিয়ে আলোচনাও করা হয় খুব কম।

ড. পেনি বলেন, এ বিষয়ে জনগনের যথেষ্ট জ্ঞানের অভাব, মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে যথাযথ শিক্ষার অভাব এবং এটি বাস্তবোচিত কোনো সমস্যা নয় সমাজে প্রচলিত এমন অপধারণার কারণে ঋতুস্রাবকালীন সময়ে নারীদের অবস্থা আরো শোচনীয় হয়ে পড়ে।
সূত্র : দ্য ইনডিপেনডেন্ট


মন্তব্য