kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঘুরে আসুন ফয়'স লেক কমপ্লেক্স

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:২৪



ঘুরে আসুন ফয়'স লেক কমপ্লেক্স

চট্টগ্রাম শহরের কোলাহলের বাইরে এক মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে অবস্থান ফয়'স লেকের। জীববৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ একটি স্থান এটি যেখানে সংরক্ষিত সবুজে রয়েছে নানা রকম গাছ আর পাহাড়।

লেককে ঘিরে পাহাড়ের মধ্যে রয়েছে অরুণিমা, জলটুঙ্গি, গোধূলি, অস্তাচল, আকাশমনি, হিমঝুরি, আসমানি, গগণদ্বীপ, উদয়ন প্রভৃতি। এসব পাহাড়ে নানা প্রজাতির গাছগাছালির মধ্যে রয়েছে সেগুন, গর্জন, কড়াই, কৃষ্ণচূড়া, সোনালু, কদবেল, পাম, বাদাম ইত্যাদি।  

সব বয়সী মানুষের জন্য লেককে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে চট্টগ্রামের অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র। পরিবার, বন্ধু-বান্ধব নিয়ে অবসরে বেড়ানো, পিকনিক অথবা কর্পোরেট অনুষ্ঠানের জন্য অন্যতম আর্কষণীয় স্থান ফয়'স লেক, কারণ এখানে রয়েছে আধুনিক সব  সুযোগ-সুবিধা আর পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ৩৩৬ একর জমিতে গড়ে ওঠা আর্কষণীয় এ বিনোদন কেন্দ্র দুই ভাগে বিভক্ত, অ্যামিউজমেন্ট পার্ক ও ওয়াটার পার্ক সী ওয়ার্ল্ড। অ্যামিউজমেন্ট পার্ক সাজানো হয়েছে অনেকগুলো রাইড নিয়ে, বাচ্চা ও বড়দের জন্য রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন রাইড। রাইডগুলো উপভোগ করলে ভ্রমণে পরিপূর্ণ আনন্দ পা্ওয়া যাবে। উল্লেখযোগ্য রাইড হচ্ছে ফেরিস হুইল, বাম্পার কার, ফ্যামিলি রোলার কোস্টার এবং  পাইরেট শিপ। ফেরিস হুইলে উঠলে এক চক্করে দেখা যাবে ফয়'স লেক অ্যামিউজমেন্ট ওয়ার্ল্ড। ফ্যামিলি রোলার কোস্টার একসঙ্গে অনেকে উপভোগ করতে পারে। দ্রুতগতিতে ফ্যামিলি রোলার কোস্টার ছাড়লে চিৎকারে মুখরিত হয়ে ওঠে এ পার্ক। এরপরই দেখা মিলবে পাইরেট শিপ। এ রাইডটি শুধু দুলতে থাকে ফলে অনেকেরই মাথা ঘুরে যা অত্যন্ত মজার।
 
বাচ্চাদের জন্য 'ফয়স লেক অ্যামিউজমেন্ট ওর্য়াল্ড' যেন এক স্বপ্নরাজ্য, কেননা সাজানো গোছানো এ জায়গায় বাচ্চারা ইচ্ছেমতো ছুটোছুটি করতে পারে। বাচ্চাদের বিনোদনের জন্য সবরকম উপকরণ রয়েছে এখানে। তাদের জন্য রাইডগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বেবি  কেরাওসাল, ট্রেন, দোলনা ইত্যাদি। ঝিকিঝক শব্দে চলা সার্কাস ট্রেন, বেবি কেরাওসালের নানা রঙ্গের ঘোড়ায় চড়ে মজা পায় বাচ্চারা। এ কমপ্লেক্সের ভেতর রয়েছে সিঁড়ি বেয়ে পাহাড়ে ওঠার ব্যবস্থা। অনেকগুলো সিঁড়ি বেয়ে উঠলে দেখা পাওয়া যাবে অনন্য সুন্দর এক পিকনিক স্পট যা ফটো কর্ণার নামে পরিচিত। সিঁড়ি বেয়ে এখানে ওঠার পর  অনেকেই হাঁপিয়ে ওঠে, তারপরও কোনো সমস্যা নেই কারণ এখানে পানি ও কোমল পানীয়ের ব্যবস্থা। ফটো কর্নার থেকে কিছু দূরের পথ এগোলেই দেখা পাওয়া যাবে অবজারভেশন টাওয়ার। এখান থেকে দুরবিনের সাহায্যে দেখা যাবে চট্টগ্রাম শহর। পিজন স্কয়ারে খাবার ছিটালে পার্কের কবুতরগুলো উড়ে এসে বসে দর্শনার্থীদের গায়ে। লেকের  পাশেই নানারকম সামুদ্রিক প্রাণির ভাস্কর্য দিয়ে সাজানো হযেছে অ্যাকোয়াটিক জোন যা পিকনিক স্পট হিসেবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। নৌ-ভ্রমণের জন্যও রয়েছে ব্যবস্থা। কেউ চাইলে প্যাডেল বোট, ইঞ্জিন বোট কিংবা স্পিড বোট নিয়ে ঘুরতে ঘুরতে দেখতে পাবে সংরক্ষিত সবুজ, বুনো খরগোশ আর হরিণের ছুটে চলা। সন্ধ্যার মৃদু আলোয় লেকের পাড় আড্ডায় মুখরিত হয়ে উঠে, কারণ এখানে পাওয়া যায় কাবাব, চটপটি, ফুসকাসহ নানারকম মুখরোচক খাবার।

শহর কিংবা দূর-দূরান্ত থেকে আগত দর্শনার্থীদের বিস্মিত করে তোলে ফয়'স লেকের দিন রাত্রির নৈসর্গিক প্রকৃতি। আধুনিক সুযোগ সুবিধা, নির্মল আনন্দ, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্য পর্যটকদের অনিবার্য গন্তব্য হতে চলেছে এ ফয়'স লেক। দেশি-বিদেশি বিভিন্ন মজাদার খাবার খাওয়ার জন্য রয়েছে অত্যাধুনিক রেস্টুরেন্ট 'লেক ভিউ'। এ ছাড়া  একাধিক ফুড কোর্টের ব্যবস্থা রয়েছে এ পার্কে। দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে পার্ক কর্তৃপক্ষ সাপ্তাহিক ছুটি ও সরকারি ছুটির দিনে সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এবং অন্যান্য দিনে সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত পার্ক খোলা রাখে।  

সী ওয়ার্ল্ড কনকর্ড :
স্বস্তির নিঃশ্বাসের সঙ্গে বাড়তি আনন্দে মেতে উঠতে চট্টগ্রামের সবচেয়ে আর্কষণীয় স্থান ওয়াটার পার্ক সী ওয়ার্ল্ড। সী ওয়ার্ল্ড গড়ে তোলা হয়েছে সবুজে ঘেরা মনোরম ফয়'স লেকের পাশে। ফয়'স লেকের বোট স্টেশন থেকে মাত্র ১০ মিনিটের পথ পেরোলেই দেখা মিলবে ওয়াটার পার্ক সী ওয়ার্ল্ডের। সারাদিন জলকেলি উৎসবে মেতে ওঠার জন্য এটি অনন্য এক স্থান। সারাদিন জল নিয়ে খেলার জন্য রয়েছে অনেকগুলো রাইড। সী ওয়ার্ল্ডের সবচেয়ে আর্কষণীয় স্থান ওয়েভ পুল, সাগরের ঢেউয়ের মতো বিশাল আকারের কৃত্রিম ঢেউ খেলা করে ওয়েভ পুলে। ওয়েভ পুলের ঠিক সামনের স্টেজে চলে ডিজে শো। ঢেউ আর ডিজে মিউজিকের তালে তালে নেচে গেয়ে উল্লাসে মেতে ওঠে দর্শনার্থীরা। টিউবে চড়ে ওয়েভ পুলের পানিতে ভেসে থাকতে মজা পায় অনেকেই। ওয়েভ পুলের পাশেই ড্যান্সিং জোনে কৃত্রিম বৃষ্টি, মনমাতানো মিউজিক আর রঙিন বাতির আলোক ঝর্ণায় নেচে গেয়ে  আনন্দ উল্লাসে হারিয়ে যায় অন্য কোনো জগতে। চিলড্রেন পুলে বাচ্চাদের পানিতে খেলার জন্য রয়েছে আর্কষণীয় অনেকগুলো রাইড। দর্শনার্থীদের জন্য ফ্যামিলি পুল অন্যতম আর্কষণীয় রাইড। এ রাইডে চড়লে খুব দ্রুতগতিতে নিচের পানিতে লাফিয়ে পড়া যায়। আরো রয়েছে বিশাল আকৃতির টিউব-স্লাইড, মাল্টি-স্লাইড, পেইন্ট-জোনসহ নানা রকম আয়োজন। প্রতিটি রাইডই যেন উল্লাসের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। রাইডগুলোতে দর্শনার্থীরা চড়ে অনেক ওপর থেকে নিচের দিকে দ্রুত নেমে যায় মুহূর্তের মধ্যে। জলে নেমে উল্লাস করার জন্য প্রয়োজনীয় পোশাক কেনার জন্য রয়েছে গিফট শপ। পোশাক পরিবর্তনের জন্য পুরুষ ও নারীদের ভিন্ন ভিন্ন চেঞ্জিং রুম আর প্রয়োজনীয় জিনিস নিরাপদে রাখার জন্য রযেছে লকার সিস্টেম। সী ওয়ার্ল্ড খাবারের জন্য রয়েছে ফুড কর্নার, যেখানে চা, কফি, আইসক্রিম, চিপসসহ নানা রকম মুখরোচক খাবার। দুপুরের খাবারের জন্য রয়েছে  আধুনিক রেস্টুরেন্ট। তাই খাবার নিয়ে বাড়তি কোন চিন্তা নেই। দেশি, চাইনিজ, ইন্ডিয়ানসহ নানারকম খাবার পাওয়া যায় এখানে। দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে পার্ক কর্তৃপক্ষ প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত পার্ক খোলা রাখে। বছরের বিশেষ দিনগুলোতে পার্ক কর্তৃপক্ষ দর্শনার্থীদের বাড়তি বিনোদনের জন্য আয়োজন করে জমজমাট কনসার্ট, ফ্যাশন শো, ডিজে শো, গেম শো, র্যাফেল ড্র-সহ নানা অনুষ্ঠানের।
 
ফয়'স লেক রিসোর্ট :
ব্যস্ত জীবনের কর্মমুখর দিনগুলো থেকে সাময়িক অবসর নিয়ে নৈসর্গিক সৌন্দর্যে ও নিরিবিলি পরিবেশে নিজেকে নতুন করে আবিষ্কার করতে ফয়'স লেক রিসোর্ট একটি আদর্শ স্থান। শহরের বাইরে কোলাহলমুক্ত পরিবেশে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করে অবসর কাটাতে ও একান্ত বিশ্রামকে মোহময় করে তুলতে আধুনিক জীবনের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দিয়ে সুসজ্জিত ফয়'স লেক রিসোর্ট। প্রকৃতি ও আধুনিকতার সমম্বয়ে গড়ে উঠেছে ফয়'স লেক রিসোর্ট ঠিক সী ওয়ার্ল্ডের গাঁ ঘেষে। ফয'স লেক রিসোর্টে যেতে হবে নৌকায় করে। ইঞ্জিনচালিত নৌকায় লেক পার হওয়ার সুবিধার কারণে পর্যটদের জন্য এটি অন্যরকম অভিজ্ঞতা। লেকের সামনে অনন্য এক স্থাপত্য শৈলীতে গড়ে তোলা হয়েছে ফয়'স লেক রিসোর্ট। শুধু ঘোরাফেরা নয়, পরিবারের সবাইকে নিয়ে রাত থেকে ফয়'স লেকের সৌন্দর্য উপভোগ করার সুযোগ। রিসোর্টের ঘরগুলো লেকমুখী ও পাহাড়মুখী দুই পাশে অবস্থিত।
 
শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত প্রতিটি কক্ষের সঙ্গে রয়েছে বারান্দা। বারান্দা থেকে উপভোগ করা যাবে লেক ও সবুজ গাছগাছালির অপরূপ সৌন্দর্য। পূর্ণিমার রাতে যখন আকাশে ভরা চাঁদ থাকে তখন রিসোর্টে থেকে ফয়'স লেকের পরিপূর্ণ সৌন্দর্যকে মনে হয় কাল্পনিক কোনো রূপকথা। রিসোর্টে বাচ্চাদের জন্য রয়েছে যথেষ্ট খোলামেলা জায়গা ও খেলাধুলার ব্যবস্থা। খাবারের জন্য রয়েছে চমৎকার একটি রেস্টুরেন্ট যা সবরকম খাবারের সমারোহে চব্বিশ ঘণ্টা খোলা থাকে। এখানকার আরেক স্থাপনা ফয়'স লেক বাংলো এক অনুপম সৌন্দর্যের প্রতীক। নিরিবিলি পরিবেশে প্রকৃতির কোলে এক রোমাঞ্চকর পরিবেশে অবস্থিত। এখানে থাকলে মনে হবে বিচ্ছিন্ন কোনো দ্বীপে অবস্থান চলছে। প্লাটিনাম, গো্ল্ড, সিলভার -এ তিন প্রকার কক্ষ রয়েছে এ বাংলো রিসোর্টে। প্রতিটি কক্ষের সঙ্গে রয়েছে বারান্দা যেখানে দাঁড়িয়ে শুধু দেখা যাবে লেকের নীল জলরাশি আর দিগন্তজুড়ে সবুজের সমরোহ। এখানেও রয়েছে খাবারের ব্যবস্থা। শীত, গ্রীষ্ম কিংবা বর্ষা সবসময় আর্কষণীয় ফয়'স লেক বাংলো রিসোর্ট। মনে হয় প্রতিটি ঋতুতে প্রকৃতি ভিন্ন ভিন্ন রূপ ধারণ করে এখানকার প্রকৃতি।  


মন্তব্য