kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সুদীর্ঘকাল সিংহাসনে থাকা এ কালের রাজা-রানিদের কথা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ১৬:৩২



সুদীর্ঘকাল সিংহাসনে থাকা এ কালের রাজা-রানিদের কথা

ছবি : রাজা ভুমিবল

৮৮ বছর বয়সে ইহধাম ত্যাগ করেছেন থাইল্যান্ডের রাজা ভুমিবল আদুলিয়াদেজ। তিনি সিংহাসনে আসীন ছিলে একটানা ৭০ বছর।

তিনি রাজা হয়েছিলেন ১৯৪৬ সালে। গত ১০ বছর ধরে জনসমক্ষে আসা ছেড়ে দেন। স্বাস্থ্যের চরম অবনতির কারণেই এমনটা করা হয়। মৃত্যুবরণের মধ্য দিয়ে সবচেয়ে দীর্ঘকাল শাসন করে যাওয়া রাজাদের মধ্যে একজনের মৃত্যু ঘটলো। এখানে দেখে নিন এমনই আরো রাজা-রানিদের কথা। এরা সুদীর্ঘকাল ধরে রাজপাট চালিয়ে যাচ্ছেন।

১. ব্রিটেনের রানি এলিজাবেথ দ্বিতীয় : এই ব্রিটিশ রানি সিংহাসনে আসীন হন ১৯৫২ সালে। বাবা জর্জ ষষ্ঠের মৃত্যুর পর রাজ্যের হাল ধরেন তিনি। সবচেয়ে দীর্ঘকাল ধরে সিংহাসনে থাকার রেকর্ড তারও রয়েছে। গত বছর ৯০ বছর বয়সী এলিজাবেথ রানি ভিক্টোরিয়ার শাসনামলকে টপকে যান। ভিক্টোরিয়া আসীন ছিলেন ১৮৩৭-১৯০১ সাল পর্যন্ত। দীর্ঘতম তালিকার ৪৫তম স্থানে রয়েছেন এলিজাবেথ। কমওয়েলথের প্রধান হিসাবে তিনি ১৬টি দেশের রানি। এর মধ্যে রয়েছে কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউ জিল্যান্ড এবং জ্যামাইকা। তার শাসনামলে তিনি এসব দেশে ১৬০ জন প্রধানমন্ত্রী বদল হতে দেখেছেন।

 

২. ব্রুনাইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়াহ : ৪৯ বছর ধরে রাজ্যপাট চালাচ্ছেন তিনি। ১৯৬৭ সাল থেকে রাজার আসনে বসেন। দেশটির পেট্রোলিয়াম ও প্রাকৃতিক গ্যাস দারুণ কাজে লাগান তিনি। এ পৃথিবীর ধনাঢ্য ব্যক্তিদের মধ্যে তিনিও একজন। মোটা সম্পদের পরিমাণ ২০ বিলিয়ন ডলার বলে জানায় ফোর্বস। তিনি যে প্রাসাদে থাকেন সেখানে রয়েছ ১৮০০টি কক্ষ। বাথরুম রয়েছে ২৫০টিরও বেশি। সুলতান হিসাবে ব্রুনাইয়ের পুরো ক্ষমতা তার হাতে। দেশটির সীমান্তবর্তী দেশগুলো হলো মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়া। ১৯৮৪ সালে ব্রিটিশদের কাছ থেকে স্বাধীন হওয়ার পর ব্রুনাই তাকেই শাসক হিসাবে পেয়েছে।

 

৩. ওমানের সুলতান কাবুস বিন সাঈদ : হিংসাসনে আসীন তিনি ৪৬ বছর ধরে। তার বয়স এখন ৭৫ বছর। ১৯৭০ সালে বাবার রাজতন্ত্রে সফল ক্যু করে ক্ষমতা দখল করেন। কাবুস এই রাজতন্ত্রে ছোট ছোট পরিবর্তন আনেন। ইরানের হরমুজ প্রণালীর সরাসরি দেশটি অবস্থিত। ২০১২ সালের মাস্কটে তিনি গোপনে আমেরিকা-ইরানের বৈঠকের আয়োজনে সহায়তা করেন। ২০১৫ সালের নিউক্লিয়ার চুক্তির ক্ষেত্রেও তার ভূমিকা রয়েছে। এসব বৈঠকে সহায়তা করার জন্য আমেরিকা ওমানে দাসপ্রথা ও মানব পাচারের মতো মারাত্মক সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। সম্প্রতি কাবুসের স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটছে। ২০১৪ সাল থেকে তিনি জার্মানিতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

 

৪. ডেনমার্কের রানি মার্গারেথ দ্বিতীয় : ৭৬ বছর বয়সী এই ডেনিশ কুইন ৪৪ বছর ধরে রাজত্ব করছেন। তিনি ইউরোপের সবচেয়ে পুরনো রানি হিসাবে টিকে রয়েছে। ১৯৭২ সালে ১৪ জানুয়ারি তারিখে সিংহাসনে বসেন। বাবার মৃত্যুর পর নারী হিসাবে প্রথম ডেনিশ সিংহাসনে বসেন। তিনি ধূমপায়ী। ছেড়ে দেওয়ার কোনো ইচ্ছাই নেই।  

 

৫. সুইডেনের রাজা কার্ল ষোড়শ : ৪৩ বছর ধরে রাজা তিনি। রাজা কার্ল গুস্তাফ এই বসন্তে ৭০ বছরে পা দিয়েছেন। ২০১০ সালের একটি বইয়ে বলা হয়, তিনি স্ট্রিপ ক্লাবে যান এবং নব্বুইয়ের দশকে এক সুইডিশ গায়িকার সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। তবে এ নিয়ে তেমন স্পষ্ট প্রমাণ নেই।

 

৬. সোয়াজিল্যান্ডের রাজা সবহুজা দ্বিতীয় : তিনিই সবচেয়ে বেশিকাল ধরে শাসন করে যাওয়া রাজা। সিংহাসনে আসীন ছিলেন ৮২ বছর ধরে। তার জন্ম ১৮৯৯ সালের ২২ জুলাই। আফ্রিকার দক্ষিণের বোয়ের ওয়ারে জন্ম। মাত্র ৪ মাস বয়সে বাবাকে হারান। গোত্রের কাউন্সিলের প্রধান ছিলেন তার বাবার সবচেয়ে প্রিয় স্ত্রী। তিনি ছোট্ট সবহুজাকে রাজা হিসাবে পছন্দ করেন। ১৯৮২ সালের ২১ আগস্টে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার

 


মন্তব্য