kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


১২ স্বৈরশাসকের প্রথম চাকরিটি কী ছিল, জেনে নিন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ১৩:০৪



১২ স্বৈরশাসকের প্রথম চাকরিটি কী ছিল, জেনে নিন

হিটলার, মুসোলিনি কিংবা ইদি আমিন কেউই জীবনের শুরু থেকে সে অবস্থানে পৌঁছাননি। স্বৈরাচারেরা যে জীবনের প্রথম থেকেই স্বৈরাচার ছিলেন এমনটা নয়।

আর তাদের প্রত্যেকেরই প্রথম কাজটি ছিল বেশ বৈচিত্রপূর্ণ। এ লেখায় তুলে ধরা হলো ১২ জন স্বৈরাচারের প্রথম কাজের কথা। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।
১. ইতালির স্বৈরশাসক বেনিটো মুসোলিনির প্রথম চাকরি ছিল একজন স্কুলশিক্ষকের। এরপর তিনি রাজনৈতিক সাংবাদিকতায় নাম লেখান।
২. উত্তর কোরিয়ার স্বৈরশাসক কিম ইল-সাং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সোভিয়েত ইউনিয়নের সেনাবাহিনীতে মেজর পদে কর্মরত ছিলেন।
৩. সোভিয়েত ইউনিয়নির স্বৈরশাসক জোসেফ স্টালিন একটি ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করে শিক্ষক ও ক্লার্ক হিসেবে কাজ শুরু করেন।
৪. পরাক্রমশালী হিটলারের এ গুণটির কথা অনেকেই জানেন না যে, তিনি একজন জলরং শিল্পী। তার প্রথম কাজটি ছিল জলরং শিল্পী হিসেবে।
৫. কম্বোডিয়ার স্বৈরশাসক পল পট ছিলেন একজন শিক্ষক। তিনি একটি প্রাইভেট স্কুলে ইতিহাস, ভূগোল ও ফরাসী সাহিত্য পড়ানো শুরু করেন।
৬. উগান্ডার স্বৈরশাসক ইদি আমিন ছিলেন একজন সহকারী কুক। এছাড়া তিনি বক্সিং চ্যাম্পিয়ন ও একজন ভালো সাঁতারু ছিলেন।

৭. হাইতির স্বৈরশাসক ফ্রঁসোয়া ‘পাপা ডক’ ডুভালিয়ের ছিলেন একজন চিকিৎসক। তিনি ইউনিভার্সিটি অব হাইতি স্কুল অব মেডিসিন থেকে ১৯৩৪ সালে চিকিৎসাবিদ্যায় ডিগ্রি অর্জন করে একটি হাসপাতালে কাজ শুরু করেন।
৮. রোমানিয়ার স্বৈরশাসক নিকোলাই কেউসিকো তার কাজ শুরু করেন শিক্ষানবিশ মুচি হিসেবে।
৯. স্পেনের স্বৈরশাসক ফ্রান্সিসকো ফ্র্যানকো প্রথম জীবনে সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। এরপর স্প্যানিক সেনাবাহিনীর ক্যাপটেন পদে পদোন্নতি পান তিনি।
১০. ফ্রান্সের স্বৈরশাসক ম্যাক্সিমিলিয়েন রবেসপিয়েরে প্রথম জীবনে একজন আইনজীবী ছিলেন। সে পেশাতেই তিনি প্রচুর অর্থ উপার্জন করেন।
১১. চিলির স্বৈরশাসক অগোস্টো পিনোচেট ওয়ার একাডেমির শিক্ষক ছিলেন। সেখানে তিনি জিওপলিটিক্স শিক্ষা দিতেন।
১২. আর্জেন্টিনার স্বৈরশাসক জর্জ রাফায়েল ভিদেলা প্রথম জীবনে সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। এরপর সেখানেই তিনি পদোন্নতি পেয়ে উচ্চ পদে আসীন হন।


মন্তব্য