kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার কাছেই কিডনির পাথরের চিকিৎসা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:৪৭



অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার কাছেই কিডনির পাথরের চিকিৎসা!

মানুষের অন্ত্রে থাকে নানা উপকারী ব্যাকটেরিয়া। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় বলা হয়, এসব ব্যাকটেরিয়াকে কাজে লাগিয়ে কিডনির পাথর দূর করা যায় কিংবা এর প্রতিরোধ সম্ভব।

কিডনির পাথর মারাত্মক স্বাস্থ্যগত সমস্যা তৈরি করতে পারে এবং ক্রনিক কিডনি রোগ সৃষ্টি করে। এতে কিডনি ফেইলিওরের সম্ভাবনাও থাকে।

ক্যালসিয়ামের সঙ্গে রাসায়নিক যোগে যুক্ত হতে পারে নেগেটিভ চার্জযুক্ত আয়ন অক্সালেট। এতে তৈরি হয় ক্যালসিয়াম অক্সালেট। এগুলোই কিডনির পাথর যা বিশেষ পরিবেশে সৃষ্টি হয়। অক্সালেটের মাধ্যমে কিডনিতে পাথরের ঝুঁকি আগে থেকেই বোঝা সম্ভব। পেটের নাড়ি অক্সালেটের ভারসাম্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। অক্সালোব্যাক্টর ফরমিজেনেস (ওএফ) এক ধরনের অ্যানাইরোবিক ব্যাক্টেরিয়াম যা বড় আকারের নাড়িতে বাস করে। এটি অক্সালেটকে শক্তির উৎস হিসাবে কাজে লাগায়।

বিশেষজ্ঞ হাতিম হাসান এবং তার সহকর্মীরা গবেষণায় দেখেছেন, ওএফ নাড়ির কোষের মাধ্যমে বহনকৃত অক্সালেটের প্রবাহকে প্রভাবিত করে। পরীক্ষায় দেখা গেছে, ইঁদুরের ইউরিনারি অক্সালেটের রেচন ৩২.৫ শতাংশ কমিয়ে আনতে পারে এএফ ফ্যাক্টর।

হাসান বলেন, প্রোবায়োটিক ব্যাকটেরিয়ার বেশ কিছু স্বাস্থ্যগুণ রয়েছে। কিডনির পাথর নিরাময়ে এবং প্রতিরোধে এসব ব্যাকটেরিয়া থেরাপির মতো কাজ করতে পারে। অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার কার্যক্রম ইঁদুরের দেহ থেকে ইউরিনারি অক্সালেট হ্রাস করেছে স্পষ্টভাবে। কাজেই এই ব্যাকটেরিয়ার মাধ্যমে মানবদেহের চিকিৎসাতেও উল্লেখযোগ্য ফলাফল মিলবে বলেই বিশেষজ্ঞদের বিশ্বাস।

জার্নাল অব দ্য আমেরিকান সোসাইটি অব নেফ্রোলজিতে গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হবে।
সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

 


মন্তব্য