kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ধর্মীয় পোশাকে লন্ডনের রাস্তায়, মিলল অদ্ভুত মানবিক সাড়া!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ১২:৪১



ধর্মীয় পোশাকে লন্ডনের রাস্তায়, মিলল অদ্ভুত মানবিক সাড়া!

লন্ডনে এক মুসলমান ব্লগার ধর্মীয় পোশাক পরে রাস্তার পাশে বসে পড়লেন। একটি প্লাকার্ড নিলেন।

তাতে লেখা 'আমি গৃহহীন'। হাসান সালেমি নামের ওই তরুণ সামাজিক গবেষণা চালালেন। লন্ডনের লেসিস্টার স্কয়ারে বসে তিনি দেখতে চাইলেন, মুসলমানদের ধর্মীয় পোশাক পরা এই মানুষটিকে লন্ডবাসীরা কি চোখে দেখেন। ফলাফল পেয়ে তিনি হতবাক হয়ে যান।

ইউটিউবে তিনি তার পরীক্ষার ভিডিওটি তুলে দিয়েছেন। সেখানে এখন মুসলমান মানেই কোনো এক আতঙ্ক যেন। তাই তিনি পূর্ণাঙ্গ ধর্মীয় পোশাকেই পরীক্ষাটি চালিয়েছেন। অনেকে তাকে এড়িয়ে যান। আবার অনেকের এগিয়ে আসায় তিনি মুগ্ধ। জানান, তিনজন মেয়ে এগিয়ে আসলেন। এসে তাকে ৫০ পাউন্ডের একটি নোট সাহায্যের জন্য দিয়ে দিলেন।

২৩ বছর বয়সী এই তরুণ মিডলসেক্স নিউনিভার্সিটির গ্র্যাজুয়েট। বলেন, আমার জন্ম হয়েছে লন্ডনে। এখানেই বড় হয়েছি আমি। এখানে মুসলমানদের বিষয়ে যে নেতিবাচক বিষয় ছড়িয়ে রয়েছে, এই পরীক্ষায় তার কিছুই আমি দেখিনি।

মুসলমান হিসাবে আমি দেখাতে চেয়েছি যে, এখনও এমন মানুষ আছেন যারা অসহায়কে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন। সে মুসলমান হোক বা যাই হোক। ওই তিনজন মেয়ে এগিয়ে এসে যখন আমার সমস্যার কথা জানতে চাইলেন এবং ৫০ পাউন্ড সাধলেন তখন আমার অনুভূতি আমি বলে বোঝাতে পারবো না। অর্থ সাহায্য না নিতে আমি তাদের বলতে বাধ্য হই যে, এটা একটা সামাজিক পরীক্ষা চলছে।

ইউটিউ চ্যানেল Hstar Vlogs এ প্রকাশিত হয় ভিডিওটি।

সালেমির পরিবার এসেছে পাকিস্তান থেকে। তিনি প্রায় একবছর ধরে এমন ভিডিও তৈরি করছেন। তবে এটাই ছিল প্রথম সামাজিক পরীক্ষা।

বললেন, আমি রাস্তায় মাত্র এক ঘণ্টা বসেছিলাম। ওই সময়ের মধ্যে ১৫-২০ জন মানুষ আমার কাছে আসেন। মানুষের মাঝে যে মানবিকতা টিকে রয়েছে তাই দেখতে চেয়েছিলেন তিনি।
সূত্র : ডেইলি মেইল

 


মন্তব্য