kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে নিলামে প্রাচীন বৌদ্ধ ও হিন্দু ভাস্কর্য

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ১১:৪৬



অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে নিলামে প্রাচীন বৌদ্ধ ও হিন্দু ভাস্কর্য

অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে নিলামে তোলা হবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে সংগৃহীত ব্যারি স্মিথ কালেকশনের ভাস্কর্য এবং প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো। আগামী ১৬ অক্টোবর থিওডর ব্রুসের মাধ্যমে অনুষ্ঠেয় আর্ট এশিয়ান জুয়েলস নিলামের অংশ হিসেবে ওগুলো নিলামে তোলা হবে।

ব্যারি স্মিথ নিউ সাউথ ওয়েলস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন ও অর্থনীতিতে স্নাতক করেছেন। এরপর তিনি খনিশিল্পে একজন সিইও হিসেবে কাজ শুরু করেন। তিনি পুরো এশিয়াজুড়ে ৪০ বছর ধরে ভ্রমণ করেন। এ সময় তিনি ভারতের স্বামী গীতানন্দের সঙ্গে থেকে যোগচর্চা করেন। দর্শন ও মরমীবাদের প্রতি তার গভীর মোহ ছিল। আর সেই মোহ থেকেই তিনি রত্নপাথর এবং ইরানি কম্বলের ব্যবসা করতেন।

তিনি নিজের জীবনের শেষ দশকটি ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে কাটিয়েছেন। সেখানে তিনি ইসলামে ধর্মান্তরিত হন এবং সুফিবাদের চর্চা করেন। স্মিথ গত বছর মারা যান।

তাকে দাফনের আগে সুফি মতবাদের ঐতিহ্য অনুসারে তার মরদেহ বিশেষভাবে সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।

খুবই আকর্ষণীয় একটি জীবন। কিন্তু তার এক চাচাতো বোন তাকে একজন হেঁয়ালিপূর্ণ ব্যক্তিত্ব হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বলেন, "ব্যারি স্মিথ অত্যন্ত প্রতিভাধার ছিলেন। কিন্তু তিনি অবিশ্বাস্যভাবে বিশৃঙ্খলও ছিলেন। সব সময়ই তিনি যেন কীসের অনুসন্ধান করতেন। তবে তার জীবনের একটি অটল ধারণা ছিল, 'মানুষসহ সমগ্র প্রাণ ও প্রকৃতি এবং বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের সবকিছুর মধ্যে পারস্পরিক সংহতিমূলক ও শৃঙ্খলাপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপন'। ''

জীবনভর এক রহস্যময় অনুসন্ধানের পাশাপাশি তিনি হিন্দু ও বৌদ্ধ ভাস্কর্য সংগ্রহ করেন। এ থেকে তাঁর নিজের জীবনের অর্থ অনুসন্ধান প্রক্রিয়াটিও প্রতিফলিত হয়।

তার সংগৃহীত ভাস্কর্যগুলো কিছু ১৫ শতকের। ব্যারি স্মিথ বলেন, প্রাচীন কোনো একটি নিদর্শন তিনি তখনই কিনতেন যখন এতে কোনো পরমার্থিক বা আধ্যাত্মিক বার্তা থাকত।

আজকাল আধ্যাত্মিক বা পরমার্থিক কারণ ছাড়াও এসব শিল্পকর্মের অনুসন্ধান করা হয়। থিওডর ব্রুসের এশীয় শিল্পকলা বিশেষজ্ঞ লিনেট কানিংটন জানান, চলতি মাসের শুরুতে নিউ ইয়র্কে এশিয়া উইক সেলসে এসব বস্তুর বেচাকেনায় ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের লেনদেন হয়েছে। সেকেণ্ডারি মার্কেটের মাধ্যমে এই লেনদেন হয়।

এশীয় শিল্পকলার চাহিদার বিশাল অংশই চীনা অর্থনীতি দ্বারা প্রভাবিত। ২০১৫ সালে এর চাহিদা কিছুটা পড়তির দিকে ছিল কিন্তু চলতি বছরে তা ফের চাঙা হয়েছে। আর এটা ফাঁপা নয়। অস্ট্রেলিয়ার বাজারেও চীনা বিনিয়োগকারীদের বিশাল ও শাক্তিশালী উপস্থিতি থাকবে। তবে নিউ ইয়র্কের তুলনায় একটু কমই থাকবে।

তিনি প্রত্যাশা করছেন, ব্যারি স্মিথ সংগ্রহের প্রতি এশীয় বিনিয়োগকারীরা প্রচুর আগ্রহ প্রদর্শন করবেন। এবার ব্যারি স্মিথ কালেকশনের ১৪ ও ১৬ শতকের একটি থাই বুদ্ধমূর্তির মূল্য ধরা হয়েছে ২০০ থেকে ১৮ হাজার ডলার।

অন্যান্যের মধ্যে রয়েছে, ২০ শতকের প্রথমদিককার বার্মিজ আধ্যাত্মিক মূর্তি (১ হাজার থেকে ১৫০ ডলার), ১৮ শতকের ব্রোঞ্জনির্মিত একজোড়া বৌদ্ধ মূর্তি (৩ হাজার থেকে ৫ হাজার ডলার) এবং ১৬ শতকের একটি থাই বৌদ্ধূর্তি, এটিও ব্রোঞ্জ নির্মিত (২৫০০ থেকে ৩৫০০ ডলার)।

এই প্রাচীন আধ্যাত্মিক চরিত্রগুলো এখন আধুনিক জীবনযাত্রার একটি নতুন বৈশিষ্ট্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। ক্রমাগতভাবে ঈশ্বরহীন বা নস্তিক্যবাদী হয়ে ওঠা বিশ্ব সমাজে এসব প্রাচীন অধ্যাত্মিক নিদর্শন সৌভাগ্য এবং সংহতি বয়ে আনে বলেই ধারণা করা হয়।
ব্যারি স্মিথ সংগ্রহের ভাস্কর্যগুলো বিক্রি হবে ১৬ অক্টোবর, রবিবার। সিডনির আলেক্সান্দ্রিয়ার ৬ র‌্যালফ স্ট্রিটের থিওডর ব্রুস নিলামকারীদের মাধ্যমে।
সূত্র : দ্য সিডনি মর্নিং হেরাল্ড


মন্তব্য