kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এই গাছ প্রাণ বাঁচায় না, মানুষকে মেরে ফেলে!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:২৩



এই গাছ প্রাণ বাঁচায় না, মানুষকে মেরে ফেলে!

কোথায় পাওয়া যায় এই গাছ? কীভাবে মানুষের ক্ষতি করে অত্যন্ত সাধারণ দেখতে এই গাছটি?

গাছ লাগান, প্রাণ বাঁচান। ছোট থেকেই এই কথা শুনেই বড় হয়েছি আমরা।

কিন্তু এটাই যদি উল্টে যায়? গাছই যদি আপনার প্রাণ কেড়ে নেয়?

হ্যাঁ, সেই রকমই একটি গাছ রয়েছে। তবে এদেশে নয়, এই মারণ গাছ রয়েছে অস্ট্রেলিয়ায়। এই গাছের কাঁটা ফুটলেই নাকি আক্রান্তের আত্মহত্যা করার ইচ্ছে হয়। এই গাছের নাম ডেনড্রোকনাইড মোরোইডস। উত্তর-পূ্র্ব অস্ট্রেলিয়ার রেইন ফরেস্ট-এ এই ধরনের গাছের সন্ধান পাওয়া যায়। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, এই গাছে এমন এক ধরনের বিষাক্ত কাঁটা রয়েছে যে তা কোনোভাবে শরীরে ফুটলে যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা পর্যন্ত করে ফেলতে পারে মানুষ। এই গাছকে জিমপি জিমপি অথবা মুনলাইটার বলেও ডাকা হয়। এই গাছের সারা শরীরে ছোট ছোট কাঁটার আস্তরণ থাকে। এই কাঁটার মধ্যে লুকিয়ে থাকে অত্যন্ত শক্তিশালী বিষ নিওরোটক্সিন। যা মানুষের শরীরে ঢুকলে অসহ্য যন্ত্রণা হয়। যদিও বেশ কিছু পাখি এবং পোকার শরীরে এই বিষের কোনো প্রভাব পড়ে না।

এই গাছের কাঁটা শরীরে ফুটলে ওয়্যাক্স স্ট্রিপের সাহায্যে প্রথমে কাঁটাগুলি তুলে ফেলতে হয়। শরীরের যে অংশে কাঁটা ফুটবে, সেই অংশে চামড়ার উপরে হাইড্রোক্লোরাইড অ্যাসিড লাগাতে হয়।

বিষাক্ত এই কাঁটা ফোটার অভিজ্ঞতা হওয়া আর্নি রাইডার জানিয়েছেন, কাঁটা ফোটার পরে দু’-তিন দিন অসহ্য যন্ত্রণা ছিল। ঘুমানো অথবা কাজ করতে পারেননি তিনি। এর পরের পনেরো দিন বেশ ভালরকমের যন্ত্রণা অনুভব করেন তিনি। এমনকী, তার পরে আরও দু’বছর শরীরের ওই অংশে হাল্কা ব্যথা ছিল। যতবার ঠান্ডা জলে স্নান করেছেন, ততবার শরীরে ব্যথা অনুভব করেন তিনি।

সূত্র: এবেলা


মন্তব্য