kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সৈকতে মিলল মৎস্যকন্যার মৃতদেহ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:৫২



সৈকতে মিলল মৎস্যকন্যার মৃতদেহ!

এক ব্রিটিশের দাবি, ইংল্যান্ডের নরফোক সৈকতে একটি মৎস্যকন্যাকে দেখেছেন তিনি। মৃত অবস্থায় তার দেহটি ভেসে আসে সৈকতে।

যদি তাই হয়, তবে ওই মৎস্যকন্যা তেল উৎপাদনকারী রিগ, মাছ ধরার জাহাজ এবং ক্রুড ওয়েল ট্যাংকার, ফেরি এবং ক্রুজ লাইনারপূর্ণ অঞ্চলে সাঁতার কাটতে গিয়ে উষ্ণতায় মৃত্যু ঘটে তার।  

শুধু দাবি নয়, এর ছবিও প্রকাশ করেছেন পল জোনস নামের ওই লোক। ছবিগুলো তিনি তুলেছেন গ্রেট ইয়ারমাউথে। ছবিগুলো ইতিমধ্যে ১৫ হাজার শেয়ার হয়ে গেছে মাত্র দুই দিনে।

পোস্টে পল লিখেছেন, আজ গ্রেট ইয়ানমাউথে এমন একটি দেহ দেখলাম যা মৃত কোনো মৎস্যকন্যার বলেই মনে হয়।

ছবিগুলো এক বীভৎস মৃতদেহের। মানুষের দেহের মতো। মৃতদেহ পচে-ক্ষয়ে আসার পর এমনটা দেখায়। দেহের নিচের অংশটা মাছের মতোই। দেহের মাঝের অংশ পচে গেছে। কিন্তু লেজের অংশটা এখনও বেশ বোঝা যায়।

অনলাইনে অনেকেই বলেন, এটা সেই মিথলজির প্রাণী, মৎস্যকন্যা। আবার অনেকে বলছেন, এটা একটা মৃত সিল। যেখানে পাওয়া গেছে সেখানে সিলদের কলোনি রয়েছে।

এ ছাড়াও অনেক পোস্টে অতি সাধারণ ব্যাখ্যা মিলেছে। জোনসের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে জানা যায়, তিনি 'হরর অ্যান্ড হ্যালোয়েন ডাই' গ্রুপের সদস্য।

মৎস্যকন্যা রূপকথার গল্প হয়েই রয়েছে। বলা হয়, এর দেহের ওপরের অংশ এক সুন্দরী যুবতীর মতো। আর কোমর থেকে নিচের অংশ মাছের মতো। এমন মৎস্যকন্যার গল্প হাজার বছর ধরে শোনা যাচ্ছে। আরব এবং গ্রিকরা ৫৮৬ খ্রিষ্টাব্দে মৎস্যকন্যার খবর প্রথম প্রচার করে।
সূত্র : ডেইলি মেইল

 


মন্তব্য