kalerkantho

রবিবার । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ । ৭ ফাল্গুন ১৪২৩। ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮।


হিটলার ছিলেন মাদকাসক্ত, উদ্দীপনা বাড়ানোর জন্য গ্রহণ করতেন বহু ধরনের মাদক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:২০



হিটলার ছিলেন মাদকাসক্ত, উদ্দীপনা বাড়ানোর জন্য গ্রহণ করতেন বহু ধরনের মাদক

ইতিহাসের বিভ্রান্তিকর শাসকদের মাঝে হিটলার একজন। আর সেই বিভ্রান্তি যেন দিন দিন বেড়েই চলেছে। এর আগে অনেকেই সংশয় প্রকাশ করেছিলেন যে, হিটলার মারা যাননি।   সম্প্রতি এক বইয়ে উল্লেখ করা হয়েছে হিটলার বেশ কয়েক ধরনের মাদকে আসক্ত ছিলেন। আর এ তথ্যের পেছনে নানাভাবে অনুসন্ধানের সহায়তা নিয়েছেন বলে দাবি করছেন লেখক। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে টেলিগ্রাফ।
সম্প্রতি হিটলারের মাদকের নেশার বিষয়টি উঠে এসেছে পুরস্কার বিজয়ী জার্মান লেখক নরম্যান ওহলারের লেখনীতে। এতে তিনি জার্মান স্বৈরশাসকের তেরোইন ধরনের নেশাদ্রব্য ইউকোডেলের নেশার বিষয়টি তুল ধরেছেন। আর এ মাদকটি ১৯৪৪ সালে হিটলারকে নার্ভাস ব্রেকডাউনের জন্য প্রেসক্রিপশনে দেওয়া হয়।
হিটলারের নেশা বিষয়ে এ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রকাশিত হয়েছে ‘ব্লিটজেড : ড্রাগস ইন নাজি জার্মানি’ বইতে। এতে ব্রিটিশ ইতিহাসবিদদের গবেষণার তথ্যও সংযুক্ত হয়েছে। এতে হিটলারের বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা ও তার সঙ্গে ড্রাগের সম্পর্ক তুলে ধরা হয়।
হিটলারের চিকিৎসাবিষয়ক তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, হিটলার এর  চিকিৎসক ড. থিও মোরেল নথিতে জানিয়েছিলেন, হিটলার নিজে বিভিন্ন মাদকে আসক্ত ছিলেন। এসব মাদক হিটলার নিজেকে আরো শক্তিশালী এবং মানসিকভাবে কঠোর করতে ব্যবহার করতেন। এছাড়াও হিটাল নিজের পৌরুষত্ব নিয়ে সন্তুষ্ট ছিলেন না ফলে তিনি নিজের পৌরুষত্ব বাড়াতে মাদক সেবন করতেন।
এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর গোয়েন্দা সংস্থার ৪৭ পৃষ্ঠার একটি নথিতে বলা হয় হিটলার বিভিন্ন ধরনের মাদক সেবন করতেন। উচ্চমাত্রার এসব মাদক এক এক ক্ষেত্রে এক এক কাজে হিটলারের মানসিক ও শারীরিক শক্তি বাড়াতে কাজ করত। বিশেষ করে হিটলার বিভিন্ন বৈঠকে যাওয়ার আগেই মানসিক দৃঢ়তা বাড়ানোর নানান মাদক নিতেন।
নথিতে দেখা যায় ১৯৪৩ সালে ইতালির তৎকালীন সেনানায়ক মুসোলিনীর সাথে এক বিশেষ বৈঠকে বসেন, ওই বৈঠকে যাওয়ার আগেও হিটলার দুই রকমের মাদক গ্রহণ করেন। ওই বৈঠকে হিটলার একটানা ২ ঘণ্টা ভাষণ প্রদান করেন। তাকে এসময় সামান্যতম ক্লান্ত মনে হয়নি।
হিটলারের মাদক নিয়ে লেখা বইটি প্রকাশিত হচ্ছে ৬ অক্টোবর। আর এতে হিটলারের বিভিন্ন সময়ের মাদকপ্রীতি ও চিকিৎসকদের নথিপত্র সংযুক্ত হয়েছে।


মন্তব্য