kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মোনালিসার সেই বিখ্যাত হাসি এবার সাক্ষ্য দিল আদালতে!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ১৬:৩২



মোনালিসার সেই বিখ্যাত হাসি এবার সাক্ষ্য দিল আদালতে!

‘রাম গরুরের ছানা..হাসতে তাদের মানা’-মার্কা নিয়মকানুন আছে পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই। এমন এক নিয়মের বিরুদ্ধে এবার আদলতে ‘সাক্ষী’ হিসেবে উপস্থাপন করা হলো লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির সুবিখ্যাত পেইন্টিং ‘মোনালিসা’ কে! এক ব্যাক্তির হাসিমাখা মুখের ছবির জন্য তার পাসপোর্ট বাতিল হওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে ফ্রান্সে।

সব রাষ্ট্রেই নাগরিকদের পাসপোর্টের জন্য ছবি তোলার সময় কিছু নির্দিষ্ট নিয়মকানুন অনুসরণ করতে হয়। ফ্রান্সের নিয়মানুসারে, পাসপোর্টের ছবিতে মুখভঙ্গি নিরপেক্ষ থাকতে হবে। কোনও বাড়তি অভিব্যক্তি যেন চেহারায় দেখা না যায়। তবে সেই নিয়ম না মেনে ছবি তোলায় ফ্রান্সে এক ব্যক্তির পাসপোর্টের ছবি বাতিল করা হয়। ছবি তোলার সময় তার দুই ঠোঁটের কোণে হালকা হাসির আভাস দেখা গিয়েছিল। সেই জন্যই তার ছবি বাতিল হয়েছে বলে জানায় সংস্থা । এরপর অধিকারের দাবি নিয়ে ওই ব্যক্তি সোজা হাজির হন আদালতে।

তার উকিলের সাহায্যে আদালতে চিঠি পাঠিয়ে তিনি জানতে চান, ‘হতাশায় পরিপূর্ণ ফ্রান্সে যদি কেউ হাসে, সেটাও কী অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে?’ তার উকিল সেই চিঠি দেখান একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থাকে। শুধু তাই নয়, ওই পাসপোর্ট সংস্থার বিরুদ্ধে কেস করেন তিনি।

তার অভিযোগ, পাসপোর্টের ছবি তোলার সময় হালকা হেসেছেন বলে ছবি বাতিল করা একদমই উচিৎ হয়নি ওই সংস্থার। দেশের আইনে বলা হয়েছে ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে মুখ বন্ধ রাখতে হবে। দুই ঠোঁটের মাঝে যেন ফাঁক না থাকে। কিন্তু হালকা করে হাসা যাবে না, এমনটা কোথাও বলা নেই।

এরপরই তিনি লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির বিখ্যাত ছবি ‘মোনালিসা’-এর কথা উল্লেখ করেন। ৫০০ বছরের বেশি সময় ধরে সারা পৃথিবীর মানুষ যে ছবিটির দিকে তাকিয়ে বার বার মুগ্ধ হয়েছে সেই ছবিতেও মোনালিসার ঠোঁটের লেগে আছে রহস্যময় হাসি। মুখ বন্ধ করেও যে নিরপেক্ষভাবে হাসা যায়, এই ছবিই তার সবচেয়ে বড় প্রমাণ বলে মত ওই ব্যক্তির।


মন্তব্য