kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাবা হিসাবে দক্ষতা দেখালেন প্রিন্স উইলিয়াম

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:৩৮



বাবা হিসাবে দক্ষতা দেখালেন প্রিন্স উইলিয়াম

বেলুন, বাবল আর পাপেট নিয়ে দারুণ সময় কাটলো প্রিন্স জর্জ আর প্রিন্সেস শার্লটের। রাজপরিবারের ক্ষুদে দুই সদস্য বাবা-মায়ের সঙ্গে প্রথমবারের মতো অফিসিয়াল ট্যুর দিয়েছেন।

সেখানে দুই ছেলেমেয়ের বিষয়ে পিতৃত্বের দক্ষতাও দেখিয়ে দিলেন প্রিন্স উইলিয়াম।

কানাডায় অফিসিয়ালি ভ্রমণ করছেন প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটন। জনসমক্ষে শার্লটের প্রথম উক্তিটি ছিল 'পপ'। রাজপরিবারের দুই সদস্য নিজের মতো খেলছিলেন। বাচ্চা দুটোকে সামলাতে বাবা হিসাবে দক্ষতা দেখিয়েছেন উইলিয়াম। ছেলের মুখে সাবানের বুদ্বুদ ছুড়ে দেওয়া বা শার্লটের মুখ থেকে বেরিয়ে আসা 'ডাডা'র মতো শব্দ নিয়ে দারুণ সময় কাটাচ্ছেন উইলিয়াম। এই প্রথম রাজপ্রাসাদের বাইরে প্রিন্সের পিতৃত্বের দক্ষতা দেখল মানুষ।

ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার ভিক্টোরিয়ার গভর্মেন্ট হাউজের মাঠে বাচ্চাদের নিয়ে আনন্দে মেতে ওঠেন উইলিয়াম ও কেট। দুই ক্ষুদে সদস্যকে বড় করে তুলতে কেটের বাবা-মা অর্থাৎ মাইক এবং ক্যারলের বেশ প্রভাব রয়েছে। কেট নিজেই এখন একজন আদর্শ মায়ের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন। তবে এই প্রথম উইলিয়ামের ভূমিকা সম্পর্কেও ধারণা হলো মানুষের।

প্রিন্স উইলিয়ামের সেই ছেলেবেলা জর্জ আর শার্লটের মতো এতটা আনন্দময় ছিল না। বাবা-মায়ের সম্পর্কের টানাপড়েনের যাতনা খুব অল্প বয়স থেকেই সহ্য করতে হয়েছে তাকে। এদের বয়সেই উইলিয়াম ও হ্যারিকে দেখা গিয়েছিল আইল্যান্ড অব মাজোরকায়। ১৯৮৬ সালের গ্রীষ্মের ওই সফরে চার্লস এবং ডায়নার সংসারের মাত্র ৫ বছর গড়িয়েছে। তখন দুজনের সম্পর্কের যথেষ্ট অবনতি ঘটেছে।

যখন নিজেই বাবা হয়েছেন উইলিয়াম, তিনি তার সন্তানদের সামনে নিশ্চয়ই তার নেতিবাচক আচরণগুলো সহজে ফুটিয়ে তুলবেন না। নিজের অভিজ্ঞতা থেকেই বাচ্চাদের সামলাবেন। নিজের ছেলেবেলায় যা দেখেছেন তা যেন এই বাচ্চাগুলো না দেখে, সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

লুটনের এক অনাথ আশ্রমে গিয়ে তিনি তার মাকে হারানোর বেদনার কথাও জানান। বলেন, আমি প্রতিদিন আমার মাকে মিস করি। উইলিয়ামের বন্ধুরা বলেন, বাবা হওয়ার পরই সে এমন খোলামেলা আবেগের কথা বলতে পারছে।

সেখানে এক পার্টির আয়োজন করে মিলিটারি চ্যারিটি। সেখানে অংশ নেয় রাজ পরিবার। ছেলেমেয়ের সামনে হাঁটু মুড়ে বসে উইলিয়াম তার মা ডায়নাকে মনে করিয়ে দেন। তিনিও পরিবারের সঙ্গে একান্ত মুহূর্তে এভাবেই বসতেন।

সেখানে প্রিন্স জর্জকে খুবই খুশি দেখা যায়। কারণটা ছিল বাবা তাকে নিয়ে খুনসুটি করছেন। আবার শার্লটকে নিয়ে বাবার আগ্রহের কারণেও জর্জকে হিংসায় জ্বলতে দেখা যায়নি।

এপ্রিলে ভারত ও ভুটানে তাদের গত সফরে ডাচেস অব ক্যামব্রিজ বাচ্চা দুটোকে খুবই মিস করছিলেন। তখন ডাচেস তাদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত ভিডিও চ্যাট করতেন। তারা ছিল ডাচেসের ক্যারোলের সঙ্গে।

ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার গভর্মেন্ট হাউজে গোটা সপ্তাহজুড়ে অনুষ্ঠানে চারজন দারুণ সময় কাটিয়েছেন। মা হিসাবে কেটকে নিয়ে কম-বেশি জানতেন মানুষ। কিন্তু বাবা হিসাবে যে উইলিয়াম বেশ পটু হয়ে উঠেছেন তার প্রমাণ কানাডাতেই মিলল।
সূত্র : ডেইলি মেইল

 


মন্তব্য