kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ডয়চে ভেলের প্রতিবেদন

উজ্জ্বল আলো কাম বাড়ায়, বাড়ায় যৌনমিলনের আগ্রহ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:৪৮



উজ্জ্বল আলো কাম বাড়ায়, বাড়ায় যৌনমিলনের আগ্রহ

যেসব পুরুষের কামোদ্দীপনা বা যৌনমিলনে আগ্রহ কমে গেছে, উজ্জ্বল আলো তাদের সেই আগ্রহ বাড়িয়ে দিতে পারে৷ সূর্যালোক বা লাইট বক্স এ ধরনের পুরুষদের টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়৷ এমনকি তাদের যৌনাকাঙ্ক্ষার সন্তুষ্টিও বাড়ায়৷
এমনটাই বলছে নতুন এক গবেষণা৷ ইটালির সিয়েনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা এই গবেষণা করেছেন৷ একটি লাইট বক্সের ব্যবহার বা সূর্যালোক পুরুষদের ‘সিজনাল অ্যাফেক্টিভ ডিসঅর্ডার' বা এসএডি কমিয়ে দেয়৷ উজ্জ্বল আলো এ ধরনের সমস্যায় আক্রান্ত পুরুষদের টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়াতে এবং যৌনজীবনে সমস্যা কমাতে সাহায্য করে৷
অধ্যাপক আন্দ্রেয়া ফাগিওলিনি যিনি এই গবেষণাটি পরিচালনা করেছেন, গত ১৯ সেপ্টেম্বর ভিয়েনায় নিউরোসাইকোফার্মাকলোজি ইউরোপিয়ান কলেজে এক সম্মেলনে তিনি গবেষণা প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন৷ জানান, এই চিকিৎসা সাধারণত উত্তর গোলার্ধের অন্ধকার শীতের মাসগুলোতে অনেক কার্যকর হবে৷
টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বৃদ্ধি প্রমাণ করে পুরুষদের যৌনতৃপ্তির মাত্রা৷ নভেম্বর থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত উত্তর গোলার্ধের পুরুষদের শরীরে টেস্টোস্টেরনের মাত্রা কম থাকে, তারপরের মাসগুলোতে কিছুটা বাড়ে৷ বসন্তে কিছুটা এবং গ্রীষ্মে সবচেয়ে বেশি৷ বয়স ৪০ ঊর্ধ্ব হলে সেখানকার পুরুষের যৌনকামনা কমে যায়৷ এই বয়সের ২৫ ভাগ মানুষই এ ধরনের সমস্যা নিয়ে চিকিৎসকদের কাছে উপস্থিত হয়৷
গবেষণা দলটি ঐসব এলাকার ৩৮ জন পুরুষকে পরীক্ষা করে দেখেছে হয় তাদের ‘হাইপো অ্যাকটিভ সেক্সুয়াল ডিসায়ার' বা ‘সেক্সুয়াল অ্যারাউসাল ডিসঅর্ডার' আছে, অর্থাৎ কামের আগ্রহ না থাকায় তাদের এ সমস্যাগুলো সৃষ্টি হয়েছে৷ গবেষণা দলটি ঐ পুরুষদের দু'টি দলে ভাগ করেন৷ একদলকে ‘ব্রাইট লাইট বক্স' চিকিৎসা দেন, অন্য দলটিকে খুব কম আলোয় চিকিৎসা দেয়া হয়৷ ফ্যাগিওলিনি জানান, দু'সপ্তাহ পর পরীক্ষায় পার্থক্যটা খুব সহজেই চোখে পড়েছে৷
চিকিৎসার আগে ঐ ৩৮ জন পুরুষের যৌনমিলনে তৃপ্তির মাত্রার গড় ছিল ১০-এর মধ্যে ২৷ কিন্তু চিকিৎসার পর যারা উজ্জ্বল আলোয় ছিল, তাদের তৃপ্তির মাত্রা ৬.৩ এবং সাধারণ দলটির স্কোর করেছিল ২.৭৷ উজ্জ্বল আলোয় যৌন মিলনে টেস্টোস্টেরনের মাত্রা দাঁড়িয়েছে মিলিলিটার প্রতি ৩.৬ ন্যানোগ্রাম, আগে যা ছিল ২.১ ন্যানোগ্রাম৷ গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগে বিষাদের ক্ষেত্রে ‘লাইট বক্স' থেরাপি ব্যবহার করে সুফল পাওয়া গেছে৷ সেখান থেকে ধারণা নিয়েই এই নতুন পরীক্ষা চালিয়েছিলেন গবেষকরা৷


মন্তব্য