kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভারত-পাকিস্তান : সামরিক শক্তিতে কোন দেশ বেশি এগিয়ে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:৪৫



ভারত-পাকিস্তান : সামরিক শক্তিতে কোন দেশ বেশি এগিয়ে

দক্ষিণ এশিয়ার পারমাণবিক অস্ত্রধারী দেশ ভারত ও পাকিস্তান। এছাড়াও দুই দেশের সামরিক বাহিনীই জনবল ও অত্যাধুনিক অস্ত্রসম্ভারে সমৃদ্ধ।

সম্প্রতি উরি আর্মি ক্যাম্পে ভারতীয় বাহিনীর ওপর বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলায় ১৮ সেনা নিহত হওয়ার পর এই অঞ্চলে ভারত পাকিস্তানের মধ্যে সামরিক উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিগত কয়েক বছরের মধ্যে দুই দেশের মনোভাব এখন সবচেয়ে হিংসাত্মক অবস্থায় রয়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। তারা ধারণা করছেন এই পরিস্থিতিতে যে কোন সময় দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ বেঁধে যেতে পারে।

যুদ্ধ যদি বেধেই যায় তাহলে কোন দেশের সামরিক শক্তি কেমন আছে সেই বিষয়টা বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দেখা দেয়। যেহেতু সবদেশই সামরিক ক্ষমতা গোপন রাখার চেষ্টা করে তাই কোনো দেশের প্রকৃত অবস্থা জানা অত্যন্ত কঠিন। ইন্টারনেট ঘেঁটে বিভিন্ন সূত্র যাচাই করে যেই তথ্যগুলো পাওয়া যায় তার পরিসংখ্যান সব জায়গায় সমান নয়। তবে কাছাকাছি।

সৈন্য সংখ্যায় এগিয়ে ভারত
বিশ্বের চতুর্থ শক্তিশালী সেনাবাহিনী হিসেবে ফের উঠে এল ভারতীয় সেনাবাহিনীর নাম। আমেরিকা, রাশিয়া আর চীনের পরই ভারত। সৈন্যদলের আকারের নিরিখে অবশ্য ইতিমধ্যেই আমেরিকা এবং রাশিয়াকে ভারত ছাপিয়ে গেছে।

সৈন্য সংখ্যায় পাকিস্তান পিছিয়ে
সৈন্য সংখ্যার বিচারে পাকিস্তান পঞ্চম স্থানে থাকলেও সেনাবাহিনীর অন্যান্য দক্ষতার বিচারে পিছিয়ে থাকায় শক্তিশালী সেনাবাহিনীর তালিকায় প্রথম দশেও ঠাঁই হয়নি সে দেশের।

ভারতের জনবল
১২৫ কোটি ১৬ লাখ ৯৫ হাজার ৫৮৪ জনসংখ্যার দেশটিতে ৬১ কোটি ৬০ লাখ জনশক্তি রয়েছে। এর মধ্যে সার্ভিসের জন্য উপযুক্ত ৪৮ কোটি ৯৬ লাখ জন। দেশটিতে প্রতি বছর সামরিক দায়িত্ব পালনের উপযুক্ত বয়সী হন ২২ কোটি ৯ লাখ ব্যক্তি। ভারতে ১৩ লাখ ২৫ হাজার সেনা রয়েছে। সামরিক প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জনবল ২১ লাখ ৪৩ হাজার।

পাকিস্তানের জনবল 
১৯ কোটি ৯০ লাখ ৮৫ হাজার ৮৪৭ জনসংখ্যার দেশটিতে ৯ কোটি ৫০ লাখ জনশক্তি রয়েছে। এর মধ্যে সার্ভিসের জন্য উপযুক্ত ৭ কোটি ৫৩ লাখ ২৫ হাজার জন। দেশটিতে প্রতি বছর সামরিক দায়িত্ব পালনের উপযুক্ত বয়সী হন ৪ কোটি ৩ লাখ ৪৫ হাজার ব্যক্তি। পাকিস্তানে ৬ লাখ ২০ হাজার সেনা রয়েছে। সামরিক প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জনবল ৫ লাখ ১৫ হাজার।

ভারতের বিমানবাহিনী
সব মিলিয়ে ভারতের দুই হাজার ৮৬টি বিমান রয়েছে। এছাড়াও দেশটির ৬৪৬টি হেলি কপ্টার, ১৯টি অ্যাটাক হেলিকপ্টার, ৮০৯টি নির্ধারিত পাখাযুক্ত অ্যাটাক বিমান, ৬৭৯টি যুদ্ধ বিমান, ৩১৮টি প্রশিক্ষণ বিমান এবং ৮৫৭টি ট্রান্সপোর্ট বিমান রয়েছে। দেশটির ৩৪৬টি ব্যবহার যোগ্য বিমানবন্দর রয়েছে।

পাকিস্তানের বিমানবাহিনী
সব মিলিয়ে পাকিস্তানে ৯২৩টি বিমান রয়েছে। এছাড়াও দেশটির ৩০৬টি হেলিকপ্টার, ৫২টি অ্যাটাক হেলিকপ্টার, ৩৯৪টি নির্ধারিত পাখাযুক্ত অ্যাটাক বিমান, ৩০৪টি যুদ্ধ বিমান, ১৭০টি প্রশিক্ষণ বিমান এবং ২৬১টি ট্রান্সপোর্ট বিমান রয়েছে। দেশটির ১৫১টি ব্যবহার যোগ্য বিমানবন্দর রয়েছে।

ভারতের সেনাবাহিনীর অস্ত্র সম্ভার
দেশটির ছয় হাজার ৪৬৪টি ট্যাংক, ছয় হাজার ৭০৪টি আর্মার্ড ফাইটার ভেহিক্যাল, ২৯০টি সেল্ফ প্রপেল্ড গান, সাত হাজার ৪১৪টি টানা কামান এবং ২৯২টি মাল্টিপল লাঞ্চার রকেট সিস্টেম রয়েছে।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর অস্ত্র সম্ভার
দেশটির দুই হাজার ৯২৪টি ট্যাংক, দুই হাজার ৮২৮টি আর্মার্ড ফাইটার ভেহিক্যাল, ৪৬৫ টি সেল্ফ প্রপেল্ড গান, তিন হাজার ২৭৮টি টানা কামান এবং ১৩৪টি মাল্টিপল লাঞ্চার রকেট সিস্টেম রয়েছে।

ভারতের নৌবাহিনীর শক্তি
দেশটির ৩৪০টি মার্চেন্ট মেরিন জাহাজ রয়েছে। প্রধান সমুদ্রবন্দর রয়েছে সাতটি। এছাড়া দুটি বিমানবাহী ক্যারিয়ার, ১৪টি সাবমেরিন, ১৪টি ফ্রিগেট, ১০টি ডেস্ট্রয়ার, ২৬টি কর্ভাটি, ছয়টি মাইন ওয়ারফেয়ার ক্রাফ্ট এবং ১৩৫টি পেট্রোল ক্রাফট রয়েছে।

পাকিস্তানের নৌবাহিনীর শক্তি
দেশটির ১১টি মার্চেন্ট মেরিন জাহাজ রয়েছে। প্রধান সমুদ্র বন্দর রয়েছে দুটি। এছাড়া পাঁচটি সাবমেরিন, ১০টি ফ্রিগেট, তিনটি মাইন ওয়ারফেয়ার ক্রাফ্ট এবং ১৩৫টি পেট্রোল ক্রাফট রয়েছে।

মুখোমুখি
ভারত-পাকিস্তান এ পর্যন্ত তিনবার মুখোমুখি হয়েছে। ১৯৪৮, ১৯৬৫ ও ১৯৯৯ সালে কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে যুদ্ধে জড়িয়েছে তারা। তবে প্রতিবারের যুদ্ধই হারজিতের পরিবর্তে সমঝোতার মধ্যদিয়ে শেষ হয়েছে।


মন্তব্য