kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


উজ্জ্বল আলোতেই বিছানায় সেরা পুরুষরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৩:৫১



উজ্জ্বল আলোতেই বিছানায় সেরা পুরুষরা

আলো-আঁধারির মাঝেই মোহবিষ্ট করার প্রক্রিয়াটা জমে ওঠে বলেই মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। প্রেমের লেনদেন হালকা আলো বা অন্ধকারেই মানানসই ও কার্যকর হয়ে থাকে বলে বিশ্বাস মানুষের।

কিন্তু নতুন এক গবেষণায় ভিন্ন কথা বলা হচ্ছে। যদি পুরুষদের কথা বিবেচনা করেন, তবে উজ্জ্বল আলোতেই সেরাটুকু দিতে পারে তারা।

গবেষণায় দেখা যায়, দিনের আলোর মতো উজ্জ্বল আলোতেই পুরুষের সেক্স হরমোন টেসটোস্টেরনের ক্ষরণ ঘটে বেশি। ফলে অন্যান্য পরিবেশ অপেক্ষা তখন পুরুষরা তিনগুন বেশি যৌনতৃপ্তি দিতে পারে সঙ্গিনীকে।

সাধারণত চল্লিশের পর পুরুষদের যৌন অনাকাঙ্ক্ষা দেখা দেয়। এ ছাড়া বয়স ও অন্যান্য কারণেও এমনটা ঘটে থাকে। যৌন আকাঙ্ক্ষা পরিবেশ ও মৌসুমে ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। কাজেই এতে আলোর প্রভাব থাকতে পারে বলে মনে করেন বিজ্ঞানীরা। ইতালির ইউনিভার্সিটি অব সিয়েনার বিজ্ঞানীরা ৩৮ জন পুরুষকে বেছে নেন যাদের যৌন আকাঙ্ক্ষা কমে এসেছে। তাদের অর্ধেককে উজ্জ্বল আলোকে ডোজ হিসাবে দেওয়া হয়।

একটি প্যানেল ডিজাইন করা হয় যার মাধ্যমে লাইট বক্স নির্মিত হয়েছে। লাইট বক্সসহ একটি রুমে প্রতিদিন সকালে ওই পুরুষরা আধা ঘণ্টা সময় কাটাতেন। পরীক্ষার শেষে দেখা গেছে, তাদের দেহে টেসটোস্টেরণের পরিমাণ অনেক বেড়ে গেছে। এ ছাড়া তারাই যৌনকর্মেও অনেক তৃপ্তিদায়ক অবস্থার কথা তুলে ধরেন। অংশগ্রহণকারীদের যাদের আলো প্রয়োগ করা হয়নি, তাদের টেসটোস্টেরনের মাত্রার তেমন হেরফের হয়নি।    

প্রধান গবেষক প্রফেসর আন্দ্রিয়া ফ্যাগিওলিনি বলেন, উজ্জ্বল আলোর চিকিৎসা যারা নিয়েছেন তাদের অদ্ভুত পরিবর্তন দেখতে পাই আমরা। পরীক্ষার আগে অংশগ্রহণকারীদের সবাই যৌন আকাঙ্ক্ষার স্কেলে ১০ নম্বরের মধ্যে ২ স্কোর করেছিলেন। যারা উজ্জ্বল আলো চিকিৎসা নেন, পরে তাদের স্কোর দাঁড়ায় ৬.৩-এ। তাদের যৌন আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধি পায় তিনগুনেরও বেশি।

ফ্যাগিওলিনি আরো জানান, আলো চিকিৎসার মাধ্যমে তাদের দেহের টেসটোস্টেরনের মাত্রা অনেক বেড়ে যায়। মৌসুমের ভিত্তিতে টেসটোস্টেরনের মাত্রা কমে যায়। যেমন- নভেম্বর থেকে এপ্রিলের মধ্যে পুরুষের টেসটোস্টেরন কমে আসে। বসন্ত, গ্রীষ্ম এবং অক্টোবর পর্যন্ত টেসটোস্টেরন তুঙ্গে থাকে। আলোর প্রভাবে মস্তিষ্কের মাঝামাঝি অবস্থিত পাইনিয়াল গ্রন্থি উত্তেজিত হয়। এতে টেসটোস্টেরনের মাত্রা বৃদ্ধি পায়।

এ গবেষণাপত্রটি ইউরোপিয়ান কলেজ অব নিউরোসাইকোফার্মাকোলজি (ইসিএনডি)-তে প্রতাশিত হয়েছে।

এখন যৌন আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধিতে আলো থেরাপিকে ক্লিনিক্যালি গ্রহণ করা যায় বলে এখনো বলা যাচ্ছে না। এ গবেষণা এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। ছোট পরিসরে গবেষণাটি পরিচালিত হয়েছে।

ইউনিভার্সিটি অব বার্সেলনা হসপিটাল ক্লিনিকের সাইকিয়াট্রি অ্যান্ড সাইকোলজি বিভাগের প্রফেসর এডুয়ার্ড ভিয়েটা জানান, এর আগেও বিষণ্নতা এবং অন্যান্য প্রয়োজনে লাইট থেরাপি ব্যবহৃত হয়েছে। পুরুষের যৌন আকাঙ্ক্ষা ফেরাতেও এর ব্যবহার কার্যকর হতে পারে।

তবে নিয়মিতি ব্যবহারের জন্য আরো গবেষণা প্রয়োজন। এর ফলাফল ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বুঝতে হবে। দীর্ঘমেয়াদে এর কোনো কুফল রয়েছে কিনা তাও বুঝতে হবে। সূত্র : টেলিগ্রাফ

 


মন্তব্য