kalerkantho


গর্ভধারণ না করেও যখন সবার চোখে অন্তঃসত্ত্বা...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৪:৩৩



গর্ভধারণ না করেও যখন সবার চোখে অন্তঃসত্ত্বা...

প্রত্যেক সংস্কৃতিতে এক বিশেষ গুরুত্ব বহন করে নারীর গর্ভধারণ। এ অবস্থায় কোনো নারীর দিকে মানুষ বিনয়ী দৃষ্টিতে তাকান এবং তার নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা করেন।

কিন্তু এমন নারীও দেখা যায়, যাদের দেখে গর্ভবতী বলে মনে হয়, কিন্তু আসলে তিনি নন।

এমনই অভিজ্ঞতার শিকার হয়েছেন এলিজাবেথ ইউকো। তিনি লিখেছেন নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা। লিখেছেন, ব্রঙ্কসে (নিউ ইয়র্কের একটি অঞ্চল) এক বাসে করে যাচ্ছি। বাসের মধ্যে একটি পোল ধরে দাঁড়িয়ে আছি। আমার পরনে একটি ভাঁজ করা একটি খাকি প্যান্ট এবং ব্লু-অক্সফোর্ড শার্ট। দাঁড়িয়ে মোবাইলে টেক্সট করছিলাম বন্ধুকে। হঠাৎ পাশের সিটে বসে থাকা এক মধ্যবয়সী ভদ্রলোক বললেন, আপনি আমার সিটে বসতে পারেন। আমি মাথা নাড়িয়ে তাকে আশ্বস্ত করে বললাম, আমি এখনই নামবো।

কিন্তু তিনি বলতেই থাকলেন, ম্যাম, আপনার দাঁড়িয়ে থাকা উচিত নয়। বাসের ঝাঁকিতে বাচ্চাটির ক্ষতি হতে পারে।

কিন্তু আমি এখন পর্যন্ত অন্তঃসত্ত্বা হইনি। আমি স্রেফ তিরিশের কোঠার পা দেওয়া এক স্বাস্থ্যবতী নারী। ঢিলেঢালা পোশাক পরে বাসে উঠেছি। ওই পোশাকের ডিজাইনটা এমন যে বুক থেকে ঝালরের মতো কিছু কাপড় নিচের দিকে নেমে এসেছে। সাধারণত গর্ভবতী নারীদের জন্য এই ডিজাইনটি বেশ জনপ্রিয়।

কিন্তু এ কারণেই এক অপরিচিত ভদ্রলোক বাসে সবার সামনে রীতিমতো বকাঝকা করতে থাকলেন। ভুল ভেবে এসব কথা বলতে থাকলেন।

সম্প্রতি নাইজেরিয়ান ঔপন্যাসিক চিমামান্দা নোজি আদিচি এক সাক্ষাৎকারে জানান, গর্ভাবস্থাকালীন তিনি বিষয়টি যতটা সম্ভব লুকিয়ে রাখার চেষ্টা করতেন।

অনেক সময়ই মনে হয়, গর্ভবতী নারী যেন সবার সম্পত্তি। যে কেউ তাদের নিয়ে নানা কথা বলতে থাকেন, জানান এলিজাবেথ। বললেন, এমনকি চাইলেই যত্ন নেওয়াও শুরু করে দেন। অনেক নারীর পেট মোটা হওয়ার কারণেও তাকে গর্ভবর্তী বলে মনে করা হয়। যখন আমি অবশেষে বাসে ওই ভদ্রলোকের সিটে বসলাম তখন তিনি তার দুই হাত দিয়ে আমার পেটটা একটু নেড়ে দিলেন, যেন বাচ্চাটাকে সঠিক স্থানে এনে দিলেন। আমি গর্ভাবস্থার বিষয়টিকে নানা দিক থেকে দেখেছি। চিন্তা করেছি, গর্ভবতী নারীদের প্রতি এমন আচরণ কেন এত স্বীকৃত হয়ে গেল।

নারীর গর্ভাবস্থা মানেই যে ভালো কোনো বিষয় তা নাও হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে নেতিবাচক পরিস্থিতিতে পড়ে সে গর্ভবতী হতে পারে। সে ক্ষেত্রে 'আপনি কেমন বোধ করছেন' কথাটাই নিরপেক্ষ শোনায়। তবে মাতৃত্ব এবং গর্ভাবস্থা বিষয়ে চারদিক থেকে যেভাবে মন্তব্য ও পরামর্শ আসতে থাকে তা শুভ মানসিকতার পরিচয় বহন করে। কিছু মানুষ অনুগ্রহ করার চেষ্টা করেন। তবে অবশ্যই গর্ভবতী নারীদের শ্রদ্ধাপূর্ণ দৃষ্টিকোণ থেকেই দেখা ভালো। কিন্তু কেউ যদি বাসের সিটটি না নিতে চান, তবে তাকে বাড়তি কথা বলার কোনো প্রয়োজন পড়ে না।

আরেকবার এমন ঘটনা ঘটল। কোলাহলপূর্ণ সাবওয়েতে দাঁড়িয়ে আছি। এক নারী আমার পেটের দিকে তাকিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণভাবে বললেন, তুমি এখানে এসে বসো। আমি দুই গালে লজ্জার লাল নিয়ে বললাম, আমি আসলে প্রেগনেন্ট নই। বিষয়টা শেষ হতে পারতো। কিন্তু তিনি বলতেই থাকলেন, তোমার স্বাস্থ্যের কোনো নারীর এমন পোশাক পরা উচিত নয়। এতে সবাই ভাববে যে তুমি অন্তঃসত্ত্বা।

কয়েক সপ্তাহ বাদে আমি পোশাকের দোকানে গিয়ে ওই গর্ভবতীর পোশাক থেকে মুক্তি নিলাম। কিন্তু ওগুলো খুব আরামের পোশাক ছিল। গরমে ওই পোশাক দারুণ। কিন্তু এর কারণে আমাকে অস্বস্তিকর মন্তব্য শুনতে হয়েছে। গর্ভধারণ না হয়েও অন্তঃসত্ত্বা হয়ে গেলাম আমি।
সূত্র : নিউ ইয়র্ক টাইমস

 


মন্তব্য