kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মার্কিন প্রেসিডেন্টদের প্রিয় মুভি কোনগুলো, জেনে নিন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:৩১



মার্কিন প্রেসিডেন্টদের প্রিয় মুভি কোনগুলো, জেনে নিন

মার্কিন প্রেসিডেন্টদের নানা বিষয় নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। তারা যেসব চলচ্চিত্র পছন্দ করেন সেগুলো নিয়েও ভক্তদের মাতামাতি চলে।

এ লেখায় তুলে ধরা হলো মার্কিন প্রেসিডেন্টদের কয়েকটি প্রিয় চলচ্চিত্রের নাম। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।

ফ্রাঙ্কলিন ডেলানো রুজভেল্ট
মার্কিন ইতিহাসের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্কলিন ডেলানো রুজভেল্টের প্রিয় চলচ্চিত্র মিকি মাউস। অফিসে থাকতেও তিনি প্রায়ই এ চলচ্চিত্রটি দেখতেন। আর এ চলচ্চিত্রের জন্য তিনি বহু গুরুত্বপূর্ণ কাজও বাদ দিতেন। এমনকি ইয়ালটা কনফারেন্স স্থগিত করেও একবার তিনি এ চলচ্চিত্র দেখেছিলেন বলে জানা যায়।

হ্যারি ট্রুম্যান
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট হ্যারি ট্রুমানের প্রিয় চলচ্চিত্র 'মাই ডার্লিং ক্লিমেনটাইন'। বহু মার্কিন প্রেসিডেন্টই ওয়েস্টার্ন মুভির ভক্ত। আর এ তালিকায় অন্যতম ব্যক্তি হ্যারি ট্রুম্যান।

ডোয়াইট আইজেনহাওয়ার
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোয়াইট আইজেনহাওয়ারের প্রিয় চলচ্চিত্রের নাম 'হাই নুন'। আইজেনহাওয়ার চলচ্চিত্র পছন্দ করতেন। আর হোয়াইট হাউজে বসবাসের সময় তিনি সেখানকার প্রাইভেট থিয়েটারে প্রায় ২০০ চলচ্চিত্র দেখেছেন।

জন এফ কেনেডি
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি জন ওয়েন ও জেমস বন্ডের মুভি পছন্দ করতেন। এ ছাড়া কেনেডি মেরিলিন মনরোর একজন ভক্তও বটে। তার প্রিয় অন্য চলচ্চিত্রগুলোর মাঝে রয়েছে দ্য লংগেস্ট ডে, রোমান হলিডে, স্পার্টাকাস, ব্যাড ডে অ্যাট ব্ল্যাক রক ইত্যাদি।

লিনডন বি. জনসন্স
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট লিনডন বি. জনসন্সের প্রিয় মুভি ছিল 'দ্য সারচার্স'। তবে তিনি চলচ্চিত্রের একেবারে ভক্ত, এমনটা বলা যাবে না।

রিচার্ড নিক্সন
রিচার্ড নিক্সনের প্রিয় চলচ্চিত্র 'প্যাটন' ও 'ইয়াংকি ডুডল ড্যানডি'। তিনি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার বিভ্রান্তিকর বায়োগ্রাফি ধরনের চলচ্চিত্র পছন্দ করতেন।

জেরাল্ড ফোর্ড
জেরাল্ড ফোর্ডের চলচ্চিত্রের বিষয়টিও অনেকটা ট্রুম্যানের মতো। তিনি চলচ্চিত্র দেখতে খুব একটা পছন্দ করতেন না। তবে বিনোদনের জন্য তিনি সপ্তাহান্তে সিনেমা দেখতেন। তার প্রিয় চলচ্চিত্র 'হোম অ্যালোন'।

জিমি কার্টার
ফোর্ড কিংবা ট্রুম্যানের মতো ছিলেন না কার্টার। তিনি বিভিন্ন ধরনের চলচ্চিত্র দেখতে পছন্দ করতেন। তার প্রিয় চলচ্চিত্র ছিল 'অল দ্য প্রেসিডেন্টস মেন' থেকে শুরু করে 'মিডনাইট কাউবয়' পর্যন্ত।

রোনাল্ড রিগান
অনেকেরই হয়ত জানা নেই, প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগে রিগান একজন অভিনেতা ছিলেন। রিগানের প্রিয় চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে 'হাই নুন', 'ইটস এ ওয়ান্ডারফুল লাইফ', 'দ্য সাউন্ড অব মিউজিক' ও তার নিজের চলচ্চিত্র।

জর্জ এইচ ডাব্লিউ বুশ (সিনিয়র)
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বুশ (সিনিয়র) তার প্রিয় চলচ্চিত্র নিয়ে খুব একটা মুখ খোলেননি। তবে তার প্রিয় চলচ্চিত্র 'ভিভা জ্যাপটা'। তার তেল কম্পানি জ্যাপটার ওপরই এ চলচ্চিত্র। এ ছাড়া 'দ্য লংগেস্ট ডে' মুভিটিও তার প্রিয় ছিল।

বিল ক্লিনটন
বিল ক্লিনটনের প্রিয় চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে 'হাই নুন' ও 'কাসাব্লাংকা'। ২০০৮ সালে এক সাক্ষাৎকারে ক্লিনটন জানান তিনি চলচ্চিত্র দেখার ক্ষেত্রে আইজেনহাওয়ার ও রিগানকে অনুসরণ করেন।

জর্জ বুশ
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের প্রিয় চলচ্চিত্র 'ফিলড অব ড্রিমস'। এ ছাড়া নাইন ইলেভেনের পর তিনি সময়ের প্রতিনিধিত্বকারী নানা চলচ্চিত্র দেখেন। এসবের মধ্যে রয়েছে 'উই অয়্যার সোলডার্স' ও 'ব্ল্যাক হক ডাউন'।

বারাক ওবামা
মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রিয় চলচ্চিত্র 'দ্য গডফাদার'। চলচ্চিত্রটির পার্ট ১ ও পার্ট ২ তার প্রিয় বলে জানা গেছে। এ ছাড়া ওবামার পপ সংস্কৃতি প্রিয়। এ কারণে তিনি সে ধরনের চলচ্চিত্র পছন্দ করেন। এ ছাড়া তার প্রিয় চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে 'লরেন্স অব অ্যারাবিয়া' ও 'কাসাব্লাংকা'।


মন্তব্য