kalerkantho


ডুবে যাওয়ার পর 'ভূতুড়ে' সেই টাইটানিক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:৫৪



ডুবে যাওয়ার পর 'ভূতুড়ে' সেই টাইটানিক

টাইটানিক জাহাজটি ডুবে যাওয়ার ঘটনা গোটা বিশ্বকে আড়োলিত করেছিল। এমনকি শত বছর পরও ঘটনাটি মানুষকে নাড়া দেয়। বিশাল বরফখণ্ডে আটকে ডুবে যাওয়া জাহাজ ও এর মানুষগুলো এক বিশাল ট্রাজেডির শিকার। এ নিয়ে বহু সিনেমা তৈরি হয়েছে। ঘটনার কয়েক মাস পরই প্রথম ছবিটি মুক্তি পায়। ওই ছবিটির লেখক ও অভিনেত্রী ছিলেন ডরোথি গিবোন। যিনি বেঁচে গিয়েছিলেন সেই বিপর্যয় থেকে।

আটলান্টিকের গভীরে বহুকাল পড়েছিল ডুবে যাওয়া সেই টাইটানিক। ১৯৮৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর জাহাজটি আবিষ্কার করেন রবার্ট ব্যালার্ড। তিনি পরে জাহাজটিকে রক্ষার প্রস্তাব করেন। ব্যালার্ডের সেই আবিষ্কারের ৩১তম বার্ষিকী উপলক্ষে জেনে নিন এ সম্পর্কে কিছু তথ্য।

১. এপ্রিলের ১৫ তারিখ, ১৯১২ সাল। সকাল সকাল হারিয়ে গেল টাইটানিক।

২. ডুবে যাওয়ার বহু বছর পর টাইটানিকের অবশিষ্টাংশ আবিষ্কার করলেন আবিষ্কারক ওসেনোগ্রাফার ড. রবার্ট ব্যালার্ড।

৩. এই মিশনে অর্থায়ন করল উডস হোল ওসানোগ্রাফার ইনস্টিটিউশন। শুরু হলো মিশন।

৪. এই ঐতিহাসিক মিশনে যোগ দিলেন ফ্রেঞ্চ মেরিন রিসার্চ ইনস্টিটিউট ইফরেমারের জিন-লুইস মিশেল।

৫. এ আবিষ্কারের পর নিয়মিত সেই স্থানটিতে যেতেন আবিষ্কারকরা।
সূত্র : ন্যাশনাল জিওগ্রাফি

 


মন্তব্য