kalerkantho

বুধবার । ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ । ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বিশ্বে এখন স্থূল মানুষের সংখ্যাই বেশি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ এপ্রিল, ২০১৬ ২০:১৫



বিশ্বে এখন স্থূল মানুষের সংখ্যাই বেশি

বিশ্বে ‘স্থূলকায়’ মানুষের সংখ্যা ‘কম ওজনের’ মানুষের সংখ্যাকে ছাড়িয়ে গেছে; একদল ব্রিটিশ বিজ্ঞানীর সাম্প্রতিক গবেষণায় উঠে এসেছে এ তথ্য।
বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯৭৫ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত সময়ে প্রায় দুই কোটি প্রাপ্তবয়স্ক নারী-পুরুষের ‘বডি মাস ইনডেস্ক’ তুলনা করে ইমপেরিয়াল কলেজ লন্ডনের গবেষকরা ‘সঙ্কটময় এ পরিস্থিতি’র কথা তুলে ধরেছেন।


বিখ্যাত চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেটে প্রকাশিত এক নিবন্ধে তারা সরকারগুলোকে এখনি এদিকে নজর দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।
নিবন্ধে তারা দেখিয়েছেন, ওই সময়ের মধ্যে পুরুষের মধ্যে মুটিয়ে যাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে তিনগুণ; নারীর ক্ষেত্রে দ্বিগুণ।
চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায়, যাদের দেহের ওজন প্রতি বর্গমিটারে ৩০ কেজির বেশি তাদেরকে ‘স্থূলকায়’ ধরা হয়।
বিশ্বের ১৮৬টি দেশের প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিদের বডি মাস ইনডেক্সের তথ্য বিশ্লেষণ করে এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৯৭৫ সালে উচ্চতার তুলনায় বেশি ওজনের মানুষের সংখ্যা ছিল ১০ কোটি ৫ লাখ। ২০১৪ সালে তা বেড়ে ৬৪ কোটি ১০ লাখে দাঁড়িয়েছে।
চার দশকে মুটিয়ে যাওয়া পুরুষের সংখ্যা মোট জনসংখ্যার ৩.২ শতাংশ থেকে বেড়ে ১০.৮ শতাংশ হয়েছে। আর নারীদের ক্ষেত্রে এই হার ৬.৪ শতাংশ থেকে বেড়ে হয়েছে ১৪.৯ শতাংশ।
বেড়েছে উচ্চতার তুলনায় কম ওজনের মানুষের সংখ্যাও। ১৯৭৫ সালে যেখানে ৩৩ কোটি মানুষ ‘আন্ডারওয়েট’ ছিল, সেই সংখ্যা ২০১৪ সালে ৪৬ কোটি ২০ লাখ হয়েছে।
জনসংখ্যা অনুপাতে অবশ্য এ হার কমে এসেছে। চার দশকে কম ওজনের পুরুষের সংখ্যা মোট জনসংখ্যার ১৪ শতাংশ থেকে কমে ৯ শতাংশ হয়েছে। আর নারীদের ক্ষেত্রে এই হার ১৫ শতাংশ থেকে কমে হয়েছে ১০ শতাংশ।
২০২৫ সাল নাগাদ স্থূলকায় ব্যক্তির সংখ্যা ২০১০ এর হারের সমপর্যায়ে নামিয়ে আনার যে লক্ষ্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নির্ধারণ করেছে,  এই পরিস্থিতিতে তা অর্জনের সম্ভবনা ‘শূন্যের কাছাকাছি’ বলে মনে করছেন ইমপেরিয়াল কলেজের গবেষকরা।


মন্তব্য