kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ । ৬ মাঘ ১৪২৩। ২০ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বহু ইতিহাসের সাক্ষী হিসেবে দাঁড়িয়ে রয়েছে প্রাচীন ১০ গাছ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ১৭:০৫



বহু ইতিহাসের সাক্ষী হিসেবে দাঁড়িয়ে রয়েছে প্রাচীন ১০ গাছ

ড্রাগনস ব্লাড ট্রি

বিশ্বে তিন ট্রিলিয়নেরও বেশি গাছ রয়েছে। আমরা এ গাছগুলোর মধ্যে মাত্র অল্প কয়েকটারই ইতিহাস জানি। গাছ শুধু আমাদের বাতাস বিশুদ্ধ করে এবং পশুপাখির বাসস্থান হিসেবে কাজে লাগে না বরং আরও বহু বিষয়েও অবদান রাখে। এমনকি গাছ থেকে ইতিহাসও জানা যায়। এ লেখায় তুলে ধরা হলো তেমন কিছু গাছের ইতিহাস। এ গাছগুলোর ছবি তুলেছেন বেথ মুন। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক।
১. গ্রেট ওয়েস্টার্ন রেড সিডার
যুক্তরাজ্যের ওয়েলসে বহু শাখাবিশিষ্ট বিশাল এ গাছটি রয়েছে। এটি যে স্থানে রয়েছে সেখানে রয়েছে আরও বেশ কিছু ঐতিহাসিক গাছ। তবে গ্রেট ওয়েস্টার্ন রেড সিডার গাছটির মতো বিখ্যাত হতে পারেনি অন্য কোনো গাছ। ধারণা করা হয় বিখ্যাত এ গাছটি ১৮৬৩ সালে লাগানো হয়। ১৯৯৯ সালে ফটোগ্রাফার বেথ মুন এ গাছটির বহু ছবি তোলেন। এ ধরনের আরও কিছু গাছ ছিল, যা পরবর্তীতে কেটে ফেলা হয়।

২. ডেজার্ট রোজ
ইয়েমেনের সকোট্রার অ্যাডেনিয়াম ওবেসামে রয়েছে ডেজার্ট রোজ নামে এ 'বটল ট্রি' গাছটি। এ গাছটি যে স্থানে রয়েছে, সেখানকার ভূপ্রকৃতিও অসাধারণ। কারণ এ স্থানটি দেখতে অনেকটা পৃথিবীর বাইরের কোনো স্থানের মতো। অনেকটা মরুভূমি এলাকায় গড়ে ওঠা এ গাছের শেকড় সামান্য মাটি থেকেই খাদ্য সংগ্রহ করতে পারে। এ গাছের ফুল সুন্দর হওয়ায় একে 'ডেজার্ট রোজ' নাম দেওয়া হয়।
৩. ম্যাজেস্টি
ইংল্যান্ডের কেন্টে অবস্থিত ম্যাজেস্টি নামে গাছটি মূলত ইংলিশ ওক প্রজাতির গাছ। চার শতাধিক বছর ধরে এ গাছটি দাঁড়িয়ে আছে। ৪০ ফুটেরও বেশি ঘেরের এ গাছটি সম্পূর্ণ ইউরোপের মধ্যে বৃহত্তম বলে ধারণা করা হয়। বহুদিন আগে এ গাছটির উত্তর পাশের একটি বড় ডাল ভেঙে পড়ে। এতে গাছটিতে বিশাল কোটর তৈরি হয়েছে।
৪. অ্যাভিনিউ অব দ্য বাওবাবস
মাদাগাস্কারের ম্যারোনডাভাতে রয়েছে 'অ্যাভিনিউ অব দ্য বাওবাবস'। এ স্থানে রয়েছে বেশ কিছু বাওবাবস গাছ। গাছগুলোর উচ্চতা প্রায় এক শ ফুট। মাদাগাস্কারে এ গাছগুলো রেনালা নামে পরিচিত হলেও মালাগাছিতে এগুলোকে 'মাদার অব দি ফরেস্ট' বা বনের মা বলা হয়। এ গাছগুলো প্রায় ৮০০ বছরের পুরনো বলে জানা যায়। একসময় এ স্থানে এ ধরনের অসংখ্য গাছ থাকলেও বর্তমানে মাত্র ২০টি রয়েছে।
৫. দ্য ক্রোহার্শট ইউ
ইংল্যান্ডের সারেতে রয়েছে এ গাছ। এ গাছটি একটি চার্চের পাশে সমাধিপ্রস্তর সংলগ্ন অবস্থায় রয়েছে। ধারণা করা হয় গাছটির বয়স ১৫০০ বছর। এ গাছটি যুক্তরাজ্যের গৃহযুদ্ধের ঘটনার সাক্ষী। গাছটিতে একটি কামানের গোলাও পাওয়া যায়। ধারণা করা হয় গৃহযুদ্ধের সময় এ গাছ ও সংলগ্ন চার্চ বিরুদ্ধ পক্ষের লক্ষ্যবস্তু ছিল এর মালিকের রাজনৈতিক আদর্শের কারণে।
৬. ক্যাপক ট্রি
যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় পাম বিচ এলাকায় রয়েছে এই গাছটি। এ গাছটি সাধারণত রেইন ফরেস্টেই দেখা যায়। ১৯৪০ সালের একটি বইতেও এ গাছটির ছবি রয়েছে। তবে আগের সে ছবিটির সঙ্গে বর্তমান গাছটির মিল খুঁজতে গেলে কিছুটা অবাক হতেই হয়। কারণ আগে গাছটি যেমন ছিল তার তুলনায় বর্তমানে বেশ পরিবর্তিত হয়েছে। এখন এর শেকড়গুলো আগের তুলনায় অনেক উঁচু হয়েছে এবং আকৃতিও অনেকাংশে পাল্টে গেছে।
৭. দ্য ইফাটি টিপট
মাদাগাস্কারের অ্যাডানসোনিয়া জা এলাকায় এ গাছটি রয়েছে। এ এলাকাটি মাদাগাস্কারের পশ্চিম উপকূলে অবস্থিত। ধারণা করা হয়, এ গাছটির বয়স ১২০০ বছর। প্রায় ৪৫ ফুট বেড়ের এ গাছটিতে ৩১ হাজার গ্যালন পানি ধারণ করা রয়েছে বলে অনুমান করেন গবেষকরা।
৮. কুইভার ট্রি
নামিবিয়ার কিটম্যানশুপ এলাকায় এ গাছটি রয়েছে। দক্ষিণ নামিবিয়ার এ এলাকায় কুইভার ট্রি ছাড়াও বিশ্বের অদ্ভুততম বহু গাছপালা রয়েছে। এ গাছগুলোর কোনো কোনোটি তিন শতাব্দী পুরনো। ১৯৯৫ সালে এ বনটিকে 'নামিবিয়ান ন্যাশনাল মনুমেন্ট' ঘোষণা করা হয়।
৯. রিলকস বায়ন
কম্বোডিয়ার সিয়েম রিপ প্রভিন্সের টা প্রফোম এলাকায় রিলকস বায়ন গাছটি রয়েছে। এ গাছটি গজিয়েছে ১২ শতকের বৌদ্ধমন্দির টা প্রহোমে। বর্তমানে ধ্বংসপ্রাপ্ত মন্দির ও কৃষিভূমির মাঝে এ গাছটি যেন বহু ইতিহাসের নীরব সাক্ষী।
১০. ড্রাগনস ব্লাড ট্রি
ইয়েমেনের সকোট্রা এলাকায় ড্রাগনের রক্ত বা ড্রাগনস ব্লাড নামে এ গাছটি রয়েছে। অদ্ভুতদর্শন এ গাছটি ৫০০ বছর ধরে বেঁচে রয়েছে বলে ধারণা করা হয়। এ গাছটি অত্যন্ত শুষ্ক এলাকায় নিজের কাণ্ড প্রসারিত করে বাতাস থেকে আর্দ্রতা ধারণ করতে চায়। এ কারণে গাছটিকে বড় একটি ছাতার মতো মনে হয়। এ গাছ বর্তমানে বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির তালিকাভুক্ত।


মন্তব্য