kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


পৌরুষত্বের গতানুগতিক ধারণায় বিশ্বাসী পুরুষরা স্বাস্থ্য বিষয়ে উদাসীন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ১০:২৯



পৌরুষত্বের গতানুগতিক ধারণায় বিশ্বাসী পুরুষরা স্বাস্থ্য বিষয়ে উদাসীন

নতুন এক গবেষণায় বলা হয়েছে, যে পুরুষরা পৌরুষত্ব প্রকাশে গতানুতগিক ধারায় বিশ্বাসী, যেমন সাহসিকতা প্রদর্শন বা আবেগাপ্লুত না হওয়া ইত্যাদি, তারা স্বাস্থ্যগত বিষয়ে অন্যদের চেয়ে উদাসীন থাকেন।

আমেরিকার রুটজারস ইউনিভার্সিটির মনোবিজ্ঞান বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ডায়ানা সানচেজ এবং তার সহকর্মী মেরি হিমেলস্টেইন এ গবেষণা পরিচালনা করেন। প্রিভেন্টিভ মেডিসিন জার্নাল এবং জার্নাল অব দ্য হেলথ সাইকোলজিতে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে বলা হয়, পুরুষদের আয়ু নারীদের চেয়ে কম হয়। কেন কম হয়? এর জবাব পেতেই মূলত গবেষণা পরিচালিত হয়।

গবেষকরা ২৫০ জন পুরুষের ওপর গবেষণা চালান। এতে দেখা যায়, যারা পৌরুষত্ব প্রকাশে উৎসাহী থাকেন তারা স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতন নন। এ ছাড়া চিকিৎসার প্রয়োজনে তারা একজন পুরুষ চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৫০ জন শিক্ষার্থীকে প্রশ্নের তালিকা দেওয়া হয়। প্রত্যেক পুরুষের স্বাস্থ্যগত তথ্যও নেওয়া হয়। এদের পৌরুষদীপ্ত বৈশিষ্ট্য পরিমাপে একটি স্কেল ব্যবহৃত হয়। যে পুরুষ এই স্কেলে পয়েন্টের ভিত্তিতে ওপরে রয়েছেন, তিনি রোগের প্রতি তত বেশি উদাসীন। এর কারণ হলো তারা অসুস্থ হয়ে নিজেদের দুর্বলতা প্রকাশ করতে চান না। এ ছাড়া পুরুষ চিকিৎসকসহ অন্য পুরুষের ওপর নির্ভরশীলতা প্রকাশ করতেও চান না। তাই চিকিৎসাসেবা থেকে দূরে থাকার প্রবণতা লক্ষ করা যায়।

মজার বিষয় হলো, এই পুরুষরাই আবার নারী চিকিৎসকের কাছে গেলে যাবতীয় সমস্যার কথা জানান দেন।

দুই গবেষক একই ধরনের ফলাফল প্রকাশ করেন ২০১৪ সালে জার্নাল অব হেলথ সাইকোলজিতে প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে। সেখানেও বলা হয়, পৌরুষত্বের গতানুগতিক ধারণায় বিশ্বাসীরা সহজে চিকিৎসা নিতে চান না। তারা বিভিন্ন রোগের লক্ষণকে অবহেলা করেন এবং স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটান।

ডায়ানা জানান, পুরুষরা নারীদের চেয়ে ৫ বছর আগে মৃত্যুবরণ করতে পারেন। তবে নারী-পুরুষের মানসিক পার্থক্য এ বিষয়ে কোনো ব্যাখ্যা দিতে পারে না।
সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

 


মন্তব্য