kalerkantho


ট্রাফিক পুলিশের সামনে কাপড় খুলেই ফেঁসে গেলেন নারী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ মার্চ, ২০১৬ ১৬:০৯



ট্রাফিক পুলিশের সামনে কাপড় খুলেই ফেঁসে গেলেন নারী

কিছু লুকোচ্ছেন কি না, এই প্রশ্নের জবাবে যে কোনও নারী নিজের জামা, ব্রা সটান তুলে দিতে পারেন, তা বোধহয় ট্রাফিক অফিসারও ভাবেননি। ঘটনাটি অ্যামেরিকার এলিরিয়ার।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরই তিনি চিৎকার করে বলেন, আপনি দেখতে চান আমার কাছে কী রয়েছে। এরপরই নিজের জামা উপরের দিকে তুলে দেন তিনি। তবে খবর আরও একটা আছে। জামা তুলতে গিয়ে ফেঁসে যান এলিজাবেথ জনসন নামে ওই নারী। তাঁর অন্তর্বাসের ভেতর থেকে কোকেন ভর্তি একটি ক্র্যাক পাইপ নীচে পড়ে যায়। তারপরই তাঁকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ রিপোর্টে বলা হয়েছে, এলিরিয়ার গ্রিস ওল্ড রোডে এলিজ়াবেথ জনসনের গাড়ি থামান এক ট্রাফিক অফিসার। গাড়িটি দাঁড় করানোর পরই ওই ট্রাফিক অফিসার দেখতে পান, নিজের জামার ভেতরে হাত ঢুকিয়ে কিছু ঢোকাচ্ছেন এলিজাবেথ জনসন। তা দেখেই ওই অফিসার নারীকে গাড়ির বাইরে আসতে বলেন।

কিন্তু, বাইরে আসতে অস্বীকার করে গাড়ির দরজা বন্ধ করে দেন নারী।

অফিসার তাঁকে বোঝানোর পর এলিজ়াবেথ জনসন বাইরে আসেন। চেঁচামেচি করে নিজের ক্ষোভ উগরে দেন এবং অফিসারকে কোনওরকম সহযোগিতা করেননি বলে অভিযোগ। এলিজাবেথ জনসন বারবার অফিসারকে বলেন, তিনি কোনও অবৈধ জিনিস নিয়ে যাচ্ছেন না।

কিন্তু, অফিসার তাঁর কথা শুনতে না চাওয়ায় চিৎকার করে এলিজ়াবেথ জনসন বলেন, আপনি দেখতে চান আমার কাছে কী রয়েছে ? তার পরমুহূর্তেই অফিসারকে চমকে দিয়ে নিজের জামা এবং অন্তর্বাস তুলে ফেলেন নারী। আর তারপরই একটি কোকেন ভর্তি ক্র্যাক পাইপ নীচে পড়ে যায়।

এলিজাবেথ জনসনের এই আকস্মিক কাণ্ডে কয়েক মুহূর্তের জন্য হতচকিত হয়ে যান অফিসার। তারপরই নিজেকে সামলে নিয়ে ওই নারীকে জামা নামানোর জন্য বললেন তিনি। এরপরই মাদক রাখা এবং পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে এলিজাবেথ জনসনকে গ্রেপ্তার করা হয়।


মন্তব্য