kalerkantho


পরিচয় বদলে খরগোশ হয়ে গিয়েছিল 'গিনিপিগ'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ১৫:২৭



পরিচয় বদলে খরগোশ হয়ে গিয়েছিল 'গিনিপিগ'

খরগোশের পরিচয় বদলে তাকে গিনিপিগ হিসেবে উপস্থাপন করলেই যে তা গিনিপিগ হয়ে যাবে এমনটা মোটেই ভাবার কারণ নেই। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ায় ঘটেছে এমন ঘটনা। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে হাফিংটন পোস্ট।
অস্ট্রেলিয়ার পুলিশকে সম্প্রতি বোকা বানানোর চেষ্টা হয়েছিল অবৈধভাবে রাখা একটি খরগোশকে গিনিপিগ হিসেবে উপস্থাপন করে। তবে অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ এত সহজে বোকা বনার পাত্র নয়। তারা ঘটনাটি উদঘাটন করতে সক্ষম হয়েছে।
এ ঘটনা ঘটেছে অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডের স্প্রিংউডে। সেখানে একটি ট্রেইলার হোমে খাঁচার ভেতর ছিল এ খরগোশ। এ প্রজাতির খরগোশ অস্ট্রেলিয়ার এ এলাকায় পোষা নিষিদ্ধ। কারণ এটি স্থানীয় পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর। খরগোশ পালন করলে এ এলাকার আইন লঙ্ঘন হয় এবং এ আইন অমান্য করলে ছয় মাসের জেল ও ৩২ হাজার মার্কিন ডলার জরিমানা হতে পারে।
এ খরগোশের মালিক পুলিশকে বোকা বানানোর চেষ্টা করছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে তারা এতে বোকা বনেনি বরং খরগোশের মালিককে আইনের আওতায় নিয়ে এসেছে।
সম্প্রতি কুইন্সল্যান্ডের পুলিশ এ খরগোশটির একটি ছবি মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে পোস্ট করেছে। এ ছবিটি অনলাইনে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে এবং অনেকেই তা নিয়ে আলোচনা করছে।
কুইন্সল্যান্ড পুলিশের একজন মুখপাত্র এবিসি নিউজ অস্ট্রেলিয়াকে জানান, এ খরগোশের মালিক এবার ক্ষতিকর প্রাণী রাখার দায়ে বিচারের মুখোমুখি হবেন।


মন্তব্য