kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শুধু ভুল হয়? দোষটা আপনার কোলাহলপূর্ণ মস্তিষ্কের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ১৩:০৬



শুধু ভুল হয়? দোষটা আপনার কোলাহলপূর্ণ মস্তিষ্কের

কোনো কাজ করতে গেলে কিছু না কিছু ভুল ঠিকই হয়। এক দল নিউরোবিজ্ঞানী তাদের গবেষণায় জানান, শব্দ বা কোলাহল মস্তিষ্ককে সুষ্ঠুভাবে কাজ করতে বাধাপ্রদান করে।

হাজারো চর্চার পরও তাই ত্রুটিহীনভাবে কাজটি শেষ করা যায় না।

ডিউক ইউনিভার্সিটির ওই গবেষণায় বলা হয়েছে, একই ছবি দেখা বা কাজের সময় মস্তিষ্কের একই ধরনের নিউরন একেক সময় একেকভাবে কাজ করে। আর এর একমাত্র কারণ শব্দ। বিরক্তিকর শব্দের জন্যেই মস্তিষ্কের আচরণ বদলে যায়। তখন আমাদের পরবর্তী চিন্তা বা কাজ একেক সময় একেক রকম হতে পারে।

প্রধান গবেষক স্টিফেন লিসবার্গার জানান, শব্দের বিড়ম্বনার কারণেই আমরা একই স্বাক্ষর সব সময় হুবহু একরকম করতে পারি না। একই কারণে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে যেভাবে বল পেটাবো বলে মনে হয়, সেভাবে করা হয়ে ওঠে না। কিবোর্ডে বসে একই টাইপ বার বার করার পরও ভুল হয়ে যায়।

মানুষের মস্তিষ্ক এবং নিউরনের মধ্যে শব্দ দূষণ রয়েছে। এটা পুরনো তথ্য। সুষ্ঠুভাবে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সরবরাহের জন্যে মস্তিষ্কে বৈদ্যুতিক তরঙ্গ ছড়িয়ে দিতে সঠিক সময়ে নিউরনের কার্যক্রম জরুরি বিষয়।

নতুন এ গবেষণায় বিজ্ঞানীরা বানরের মস্তিষ্কে নিউরনের কার্যক্রম নিরীক্ষা করেন। এ সময় কম্পিউটারের মাধ্যমে মস্তিষ্কের 'এমটি' নামে বিশেষ এক অংশ পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছিল। দৃষ্টি এদিক ওদিক নেওয়ার জন্যে এমটি কাজ করতে থাকে। এমটি অংশের কাজের সময় মস্তিষ্কের প্রত্যেকটি নিউরন নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে ক্রিয়াশীল হয়ে ওঠে।

একটি নিউরন ক্রিয়াশীল হওয়ার সময়ের ওপর অন্য নিউরনের কার্যকারিতা নির্ভর করে। পরীক্ষায় দেখা যায়, একটি নিউরন একটু দেরিতে কাজ করলে তার প্রতিবেশীও একটু দেরি করে ফেলে। ফলে নিখুঁত সময়জ্ঞান থাকলেও তা পালন করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। তবে মস্তিষ্কের অন্যান্য নিউরন কিভাবে গোটা প্রক্রিয়াটি সুষ্ঠু করতে কাজ করে তা বুঝতে আরো গবেষণা প্রয়োজন বলে জানান লিসবার্গার।
সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

 


মন্তব্য