kalerkantho


গভীর ঘুমের জন্য...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৯:১১



গভীর ঘুমের জন্য...

ছবি অনলাইন

দ্রুত ডিনার করুন

রাতে খাদ্য গ্রহণের পরপরই ঘুমিয়ে পড়া এক অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস। কারণ খাবার হজমের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে দেহের ব্যস্ততা আপনাকে ঘুমাতে দেবে না। আবার ঘুম আসার ভাব থাকলেও তা ভেঙে যাবে। অর্থাৎ গভীর ঘুম কঠিন বিষয়। তাই স্বাস্থ্যবিদরা ঘুমের দুই থেকে তিন ঘণ্টা আগেই রাতের খাবার সেরে ফেলার পরামর্শ দেন। তা ছাড়া পূর্ণ পাকস্থলী নিয়ে ঘুমাতে গেলে তা হার্ট বার্নের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

অ্যালকোহল এড়িয়ে চলুন

এটা সবাই জানে যে ক্যাফেইন ঘুম নষ্ট করে। আবার অনেকে ভুল জানে যে অ্যালকোহল পান করলে গভীর ঘুম হয়। কিন্তু আসল কথা হলো, ভালো ঘুমের জন্য দুটি জিনিসই এড়িয়ে চলতে হবে। কারণ অ্যালকোহলে ঝিমুনি ভাব এলেও ঘুম আসে না।

দুশ্চিন্তা বাদ দিন

গভীর ঘুমও অকারণে ভেঙে যেতে পারে যদি মাথায় দুশ্চিন্তা নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। রাতে বিছানায় উঠে টেনশন করবেন না। দিনের যত সমস্যা তা ঘুমের সময় ভুলে যেতে হবে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, এমনকি গভীর দুশ্চিন্তা নিয়ে ঘুমালে স্লিপ ওয়াকের মতো ঘটনাও ঘটে। বিছানায় ওঠার আগ দিয়ে শান্ত হয়ে যান। ধীরস্থির মন নিয়ে ঘুমানোর চেষ্টা করুন।

শয়নকক্ষ গুছিয়ে নিন

বিশেষজ্ঞরা বলেন, শয়নকক্ষ তাকেই বলে যেখানে শুধু ঘুমাতে হয়। কিংবা এই কক্ষের আসল কাজের একটি হলো ঘুম। আর যেখানে ঘুমাবেন সেখানে গভীর ঘুমের পরিবেশ থাকতে হবে। ঘুমের আগ দিয়ে কক্ষের সব ধরনের যন্ত্র বন্ধ করে দিন। টেলিভিশন বন্ধ থাকবে। কম্পিউটার চালু থাকবে না। কক্ষের পরিবেশ ও আবহ এমন থাকবে যে সেখানে আরামে ঘুমানো যাবে।

-- সুইরলস্টের অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার



মন্তব্য