kalerkantho


‘আর্টিফিশিয়াল সুইটেনার’ ভয়ংকর!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ আগস্ট, ২০১৮ ০৯:১৬



‘আর্টিফিশিয়াল সুইটেনার’ ভয়ংকর!

ছবি অনলাইন

এখন মোটামুটি সবাই জানে যে কৃত্রিম মিষ্টিবর্ধক উপাদান মোটেও স্বাস্থ্যকর নয়। কারণ এই চিনি সিনথেটিক উপাদান দিয়ে বানানো হয়। এটা হজম করা দেহের জন্য খুব কঠিন কাজ। যদিও এর ব্যবহার ব্যাপক হারে চলছেই। এই কৃত্রিম মিষ্টি উপাদান সম্পর্কে কয়েকটি তথ্য দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা

এটা নিরাপদ নয়

এর স্বাদ যতই সুস্বাদু হোক না কেন, এটা মারাত্মক ক্ষতিকর। এসসালফেম পটাসিয়াম কিংবা এস কে এবং অ্যাস্পার্টেমের মতো সুইটেনার প্রায় গোটা বিশ্বেই নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবু কয়েকটি দেশে ঠিকই বিক্রি হচ্ছে। এগুলো চরমভাবে বিপজ্জনক এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি সৃষ্টি করতে পারে।

বিপাকক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হয়

নিয়মিত খেলে দেহের বিপাকক্রিয়া ধীর হতে থাকে। ইনসুলিন ও গ্লুকাগনের ভারসাম্য নষ্ট হয়। দ্বিতীয়টি রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। এ পরিস্থিতিতে আপনার ক্ষুধা বাড়বে। ফলে আপনি বারবার খেতে থাকবেন এবং স্থূলতার আশঙ্কা দেখা দেবে। ওজন হয়ে উঠবে অস্বাস্থ্যকর।

রোগের ঝুঁকি

বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ গবেষণায় বলা হয়, টাইপ ২ ডায়াবেটিস এবং মেটাবলিক রোগসহ আরো নানা অসুখ-বিসুখের ঝুঁকি বাড়ে আর্টিফিশিয়াল সুইটেনারের কারণে। এগুলো ক্রনিক কিডনি ডিজিস ও নিউরোলজিক্যাল সমস্যার জন্যও দায়ী হয়ে ওঠে।

গর্ভের শিশুর জন্য হুমকি

যারা গর্ভধারণ করেছে তাদের জন্য এই উপাদান ভয়ংকর। গর্ভে শিশুর বেড়ে ওঠা অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। এমনকি ভ্রূণের পর্যায়ে থাকলে তা নষ্টও হয়ে যেতে পারে।

চিনি খাওয়ার নেশা বাড়ে

কৃত্রিম চিনি বা মিষ্টিজাতীয় উপাদান নিয়মিত খেলে আসলে মিষ্টি খাওয়া নেশা হয়ে যায়। ফলে একই উপাদান বেশি বেশি খাওয়ার প্রবণতা বাড়ে। এটা স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার



মন্তব্য