kalerkantho


হাই কমোডের চেয়ে লো কমোডের টয়লেট স্বাস্থ্যকর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩০ আগস্ট, ২০১৮ ১০:৪৭



হাই কমোডের চেয়ে লো কমোডের টয়লেট স্বাস্থ্যকর

ছবি অনলাইন

বহুকাল আগে থেকেই টয়লেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমাদের দেশে নিচু কমোড (বা লো কমোড) ব্যবহৃত হয়। তবে সম্প্রতি হাই কমোডের (উঁচু কমোড) জনপ্রিয়তা বাড়ছে। আর হাই কমোডকেই অনেকে স্বাস্থ্যকর বলে মনে করেন। যদিও বাস্তবে বিষয়টি তার বিপরীত।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হাই কমোডের কারণে বিভিন্ন অন্ত্রের সমস্যা যেমন হেমোরয়েডস, অন্ত্রের প্রদাহ, কোলন ক্যানসার, পেলভিক ক্যানসার ও মলত্যাগে সমস্যার আশঙ্কা বাড়তে পারে। যারা হাই কমোডের বদলে নিচু কমোড ব্যবহার করেন তাদের এসব রোগে আক্রান্ত হওয়ার হার কম দেখা যায়।

দেশি লো কমোড টয়লেটে বসার ভঙ্গিটিকেই স্বাভাবিক বলছেন গবেষকরা। এটি অনেকটা স্কোয়াটের ভঙ্গি। অন্যদিকে হাই কমোডে বসার ভঙ্গিটি মোটেই স্বাভাবিক নয়। এতে টেনশন ও দেহে বাড়তি স্ট্রেচ তৈরি করে।

দেশি লো কমোডের টয়লেটে বসার ভঙ্গিটি অনেকটা স্কোয়াটে বসার মতো। এটি কোলন ক্যান্সার থেকে রক্ষার জন্য কার্যকর ও স্বাস্থ্যের জন্য ভালো বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

হাঁটু বা শরীরে ব্যথার কারণে লো কমোড টয়লেটে বসতে যদি সমস্যা হয় সেক্ষেত্রে হাই কমোডে বসা যেতে পারে। তবে শরীরে যদি কোনো সমস্যা না থাকে তাহলে দেশি লো কমোড টয়লেটে বসাই ভালো। সূত্র : ডেইলি মেইল।



মন্তব্য