kalerkantho


ওজন নিয়ন্ত্রণে ‘ড্যাশ’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ জুন, ২০১৮ ০৯:২৪



ওজন নিয়ন্ত্রণে ‘ড্যাশ’

ছবি অনলাইন

ওজন নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো খাবারের তালিকা। ইন্টারনেটের যুগে হাজারো খাবারের তালিকা ‘গুগলে’ খুঁজলেই মিলবে। এগুলোর মধ্যে একটি তালিকা খুবই জনপ্রিয়। ইংরেজিতে বলা হয় ‘ড্যাশ’। আজকের টিপস এই ‘ড্যাশ’ নিয়ে। তবে যেকোনো তালিকা গ্রহণের আগে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে।

ড্যাশের জয়গান

মার্কিন পুষ্টিবিদদের মতে, আট বছর ধরে এর চেয়ে ভালো খাদ্য গ্রহণের তত্ত্ব নাকি আর মেলেনি। যুক্তরাষ্ট্রের হার্ট অ্যাসোসিয়েশন এই ‘ড্যাশ’-এর ওপর ভিত্তি করেই ২০১০ সালে তাদের ডায়েটারি গাইডলাইন প্রণয়ন করে। এ খাবার তালিকা শুধু ওজন কমায় না, সার্বিকভাবে স্বাস্থ্যের যত্নও নেয়। রক্তচাপ, কোলেস্টেরল এবং সংশ্লিষ্ট অসুবিধা নিয়ন্ত্রণে আনে ‘ড্যাশ’। এ খাবারেই হার্ট অ্যাটাক, হার্ট ফেইলিওর, কিডনির পাথর, স্ট্রোক ও ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে।

‘ড্যাশ’ আসলে কী?

এর পুরো নাম ‘ডায়েটারি অ্যাপ্রোচেস টু স্টপ হাইপারটেনশন’। এ পদ্ধতিতে ফল, সবজি, নিম্নমাত্রার ফ্যাটযুক্ত দুগ্ধজাত খাবার, বাদাম, চর্বিবিহীন দুগ্ধজাত পণ্য, মাছ, শস্যদানা ও পোল্ট্রি খাবারের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। একই সঙ্গে চিনি ও লবণযুক্ত খাবার, ট্রান্স ফ্যাট ও প্রক্রিয়াজাত খাবার এড়িয়ে চলাই অন্যতম লক্ষ্য। বিশেষ করে ফল ও সবজির বাহুল্য থাকবে তালিকায়।

সাপ্তাহিক পুষ্টি

এখানে ‘ড্যাশ’ পদ্ধতিতে প্রতিদিন কতটুকু পুষ্টি গ্রহণ করতে হবে, সে সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হলো। একবারের পরিবেশনায় কতটুকু নেবেন তা নির্ভর করবে আপনার ক্ষুধার পরিমাণ আর বাটির সাইজের ওপর। পরিমাণটা হবে এমন :

— শস্যদানার তৈরি খাবার পাঁচ বাটি

— সবজি চার থেকে পাঁচ বাটি

— ফল চার বাটি

— নিম্নমাত্রার ফ্যাটযুক্ত দুগ্ধজাত খাবার দুই থেকে তিন বাটি

— মাছ, কম চর্বিযুক্ত মাংস ও মুরগি সর্বোচ্চ ১১০ গ্রাম

— সোডিয়াম সর্বোচ্চ ২ দশমিক ৩ মিলিগ্রাম

এখানে যে হিসাব দেওয়া হয়েছে তা এক হাজার ৬০০ ক্যালোরির

-- টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার



মন্তব্য